বান্দরবানে শুরু হলো বঙ্গবন্ধু নবম বাংলাদেশ গেমসের কারাতে ইভেন্ট

জমকালো আয়োজনে বান্দরবানে শুরু হলো বঙ্গবন্ধু নবম বাংলাদেশ গেমসের কারাতে প্রতিযোগিতা ।

মঙ্গলবার (৬ এপ্রিল) সকালে বেলুন উড়িয়ে তিন দিন ব্যাপী বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদের কমিউনিটি হল রুমে কারাতে ইভেন্টের উদ্বোধন ঘোষণা করেন পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে জেলা প্রশাসক ইয়াছমিন পারভিন তিবরীজি’র সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ কারাতে ফেডারেশনের সাধারন সম্পাদক ক্যশৈহ্লা, বান্দরবান ৬৯ পদাতিক ব্রিগেডের ব্রিগেড কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল জিয়াউল হক, পুলিশ সুপার জেরিন আখতার, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান একেএম জাহাঙ্গীর ।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং বলেন, কারাতে খেলোয়াড়রা অন্যান্য খেলোয়াড়ের চেয়ে সংযমী। তাদের হাত অস্ত্রের চেয়ে শক্তিশালী, গতিশীল । আত্মনিয়ন্ত্রণের যে শক্তি সেটি শুধু কারাতে খেলোয়াড়দের মধ্যে দেখা যায়। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী নিজেও একজন ক্রীড়াপ্রেমী ।

মনোনাঙ্গ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের শেষে শুরু হয় প্রতিযোগিতা। টান টান উত্তেজনাকর এই খেলায় বান্দরবান গোল্ডে ব্যক্তিগত ফিমেল কাতা অংশে বান্দরবান গোল্ড অর্জন করেন নুমে মার্মা, সিলভার পান বাংলাদেশ আনসার ভিডিপি’র হুমায়রা আক্তার অন্তরা এবং ব্রোঞ্জের অধিকারী হন কক্সবাজার জেলার এলিক মার্মা ও বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর কারিমা খাতুন।

এছাড়াও মহিলা দলগত কাতায় গোল্ড অর্জন করে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী, সিলভারে বাংলাদেশ আনসার, ব্রোঞ্জে বান্দরবান ক্রীড়া সংস্থা ও রাজশাহী ক্রীড়া সংস্থা। পরে সকালের অধিবেশনে বিজয়ীদের মাঝে পদক পরিয়ে দেন প্রধান অতিথি ও বিশেষ অতিথিরা।

এবারের কারাতে ইভেন্টে দেশের ৪০টি দল অংশ নিয়েছে বলে জানিয়েছেন আয়োজকরা । প্রতিযোগিতা থেকে ভবিষ্যত তারাকাদের খুঁজে বের করতে এই খেলার আয়োজন করেছে বাংলাদেশ অলম্পিক এসোসিয়েশন ও বাংলাদেশ কারাতে ফেডারেশন । এ আগামী ৮ই এপ্রিল সন্ধ্যায় শেষ হবে এই ইভেন্টের ।

১লা এপ্রিল সন্ধ্যায় বঙ্গবন্ধু নবম বাংলাদেশ গেমসের বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে ভার্চুয়ালি উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ২ এপ্রিল থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হয়েছে ৩১টি খেলার ৩৭৮টি ইভেন্টের ১২৭১ টি পদকের লড়াই। ঢাকা সহ সারাদেশের ২৯টি ভেন্যুতে হচ্ছে এই খেলা। যেখানে নিজেদের শ্রেষ্ঠত্বের প্রমাণ দেবেন ক্রীড়াবিদরা। আর এদের মধ্যে থেকেই বেরিয়ে আসবে ভবিষ্যতের তারকারা। যারা দেশকে এনে দেবেন আন্তর্জাতিক সাফল্য ।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।