অভিযোগ দুর্নীতির: আব্দুলের বদলি রাঙামাটির পাসপোর্ট অফিসে

আব্দুল মোত্তালেব সরকার
আব্দুল মোত্তালেব সরকার
ব্যাপক দুর্নীতি ও অফিসের এক নারী কর্মচারীকে কুপ্রস্তাবের কারনে ঝিনাইদহ আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসের সহকারী উপ-পরিচালক আব্দুল মোত্তালেব সরকারকে রাঙামাটিতে বদলী করা হয়েছে।
বহিরাগমন ও পাসপোর্ট অধিদপ্তরের ওয়েবসাইট সূত্রে জানা গেছে, গত রোববার তিনি বদলীর আদেশ সম্বলিত ই-মেইল বার্তাটি পান। ধারণা করা হচ্ছে,ঝিনাইদহ আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসে পাসপোর্ট গ্রহীতাদের কাছ থেকে ঘুষ আদায়, দুর্নীতি ও অফিসের এক নারী কর্মচারীকে কুপ্রস্তাব দেওয়ার কারণে তাকে রাঙ্গামাটি পাসপোর্ট অফিসে বদলী করা হয়। ঝিনাইদহ পাসপোর্ট অফিসে পদায়ন (চঃ দাঃ) করা হয়েছে রাঙ্গামাটি আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসের ডিএডি ফরিদ উদ্দীন আহমেদকে।
আরো জানা গেছে, গত ২৪ আগস্ট ডিএডি আব্দুল মোত্তালেব সরকারের বিরুদ্ধে কর্মক্ষেত্রে হয়রানী, উত্যক্তসহ যৌন নিগ্রহের অভিযোগ তদন্ত করতে ঝিনাইদহে আসেন প্রধান কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক (সংস্থাপন) নাসরিন পারভিন নুপুর। ঝিনাইদহ আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসের এক নারী নিম্নমান সহকারী বহিরাগমন ও পাসপোর্ট অধিদপ্তরের মহাপরিচালকের বরাবর এ অভিযোগ করেন।
সহকারী উপ-পরিচালক আব্দুল মোত্তালেব সরকার ২০১৫ সালের ৩০ জুলাই ঝিনাইদহ আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসে যোগদান করেন। ঝিনাইদহ পাসপোর্ট অফিসে দিনে আনুমানিক দুই লাখ টাকা করে ঘুষ আদায় করা হতো। ঘুষের টাকা না দিলে চরমভাবে হয়রানী করা হতো এমন অভিযোগ স্থানীয়দের। ঝিনাইদহ পাসপোর্ট অফিসে যোগদানের আগে তিনি কক্সবাজার পাসপোর্ট অফিসে দায়িত্ব পালনকালে তিনি মায়ানমারের রোহিঙ্গা শরণার্থীদের পাসপোর্ট দিয়ে বিতর্কে জড়িয়ে পড়েন। এ নিয়ে গোয়েন্দা প্রতিবেদনে সরকারের উপর মহলকে জানানো হলে তাকে বদলী করা হয়।
এ বিষয়ে রাঙামাটিতে বদলিকৃত উপ-পরিচালক মোত্তালেব সরকার বদলীর খবর স্বীকার করে বলেন, আমরা সরকারী চাকরী করি, বদলী তো হতেই হবে, তবে তিনি দুর্নীতির অভিযোগ প্রসঙ্গে কোন মন্তব্য করতে রাজি হননি।

আরও পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।