কাপ্তাইয়ের চন্দ্রঘোনা ইউনিয়নে সরকারি সহায়তা পেল ২৮৫ পরিবার

করোনা ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে দেশে চলছে এখন অঘোষিত লকডাউন। এই ভাইরাস হতে রক্ষা পাওয়ার জন্য সরকার ইতিমধ্যে ছুটি ঘোষনা করেছে সমস্ত সরকারি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান। অতি প্রয়োজন ছাড়া মানুষজন ঘর থেকে বের হচ্ছেন না এই মূহুর্তে। তাই এই চরম সংকটে নিন্ম আয়ের মানুষ বিশেষ করে খেটে খাওয়া মানুষজন এর অবস্থা খুবই করুন। এই পরিস্থিতিতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশক্রমে জেলা প্রশাসন এবং উপজেলা প্রশাসনের তত্ত্বাবধানে সরকারের ত্রান ও পূর্নবাসন মন্ত্রনালয় হতে অতি দরিদ্র শ্রেনীর মানুষের জন্য সরকারি বরাদ্দ প্রদান শুরু হয়েছে।

তারই ধারাবাহিকতায় রাঙামাটি জেলা প্রশাসন হতে কাপ্তাই উপজেলার ৫ টি ইউনিয়নের জন্য ১২.৫০ মেট্রিক টন খাদ্যশস্য এবং নগদ এক লাখ টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে।

আজ শনিবার (২৮ মার্চ) সকাল ১১ টায় কাপ্তাই উপজেলার ১ নং চন্দ্রঘোনা ইউনিয়ন এর ২৮৬ টি পরিবারের মাঝে পরিবার প্রতি ১০ কেজি চাল এবং আধা কেজি করে ডাল, সয়াবিন তেল এবং লবন প্রদান করা হয়।

কাপ্তাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশ্রাফ আহমেদ রাসেল এই কর্মসুচীর উদ্বোধন করেন। এই সময় ১ নং চন্দ্রঘোনা ইউপি চেয়ারম্যান আনোয়ারুল ইসলাম চৌধুরী বেবীসহ ইউপি সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশ্রাফ আহমেদ রাসেল জানান, ইতিমধ্যে সরকারি বরাদ্দ উপজেলার প্রত্যেক ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানদের অনুকুলে পাঠানো হয়েছে। তারা এটা বন্টন করবেন।
চন্দ্রঘোনা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আনোয়ারুল ইসলাম চৌধুরী বেবী জানান, লোক সমাগম যাতে বেশী না হয় তিনি ইউপি সদস্যদের নিয়ে প্রত্যেকটি ওয়ার্ড এ হত দরিদ্রদের মাঝে এই ত্রান সামগ্রী বিতরণ করেছেন।

আরও পড়ুন
Loading...