বান্দরবান নির্বাচন অফিসের ডাটা এন্ট্রি অপারেটর নিরুপন নাথ গ্রেফতার

রোহিঙ্গাদের পরিচয়পত্র

মিয়ানমারের রোহিঙ্গাদের অর্থের বিনিময়ে অবৈধভাবে জাতীয় পরিচয়পত্র দেওয়ার দুর্নীতি মামলার আসামী বান্দরবান সদর উপজেলা নির্বাচন অফিসের ডাটা এন্ট্রি অপারেটর নিরুপন কান্তি নাথকে গ্রেফতার করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

আজ বুধবার (১১ডিসেম্বর ) দুদকের চট্টগ্রাম সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের একটি টিম বান্দরবানে এক অভিযানে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে দুদকের জনসংযোগ কর্মকর্তা প্রনব কুমার নিশ্চিত করেছেন। এর আগে নির্বাচন অফিসের তিনজনসহ মোট আটজনকে আসামি করে দুদকের উপসহকারী পরিচালক মো. শরীফ উদ্দিন বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেন।

এজাহারভুক্ত আসামিরা হলেন, চট্টগ্রাম থানা নির্বাচন অফিসের অফিস সহায়ক মো. জয়নাল আবেদীন, তার স্ত্রী মোছাম্মৎ আনিছুন নাহার বেগম, চট্টগ্রামের বাসিন্দা মো. জাফর, সত্য সুন্দর দে, সীমা দাশ প্রকাশ সুমাইয়া জাহান, বিজয় দাশ, চট্টগ্রাম জেলা নির্বাচন অফিসের অস্থায়ী অফিস সহকারী ঋষিকেশ দাশ ও বান্দরবান সদর উপজেলা নির্বাচন অফিসের ডাটা এন্ট্রি অপারেটর নিরুপন কান্তি নাথ।

এজাহার সূত্রে জানা যায়,আসামিরা পরস্পর যোগসাজশে অবৈধভাবে জাতীয় পরিচয়পত্র গ্রহণকারী রোহিঙ্গাদের নিকট হতে অবৈধ উপায়ে মোট ৬৭ লাখ ৮৩ হাজার ২৯৬ টাকা হস্তান্তর, স্থানান্তর এবং বাড়ি নির্মাণে ব্যয় করে রূপান্তরের মাধ্যমে মানিলন্ডারিং শাস্তিযোগ্য অপরাধ করেছেন।

আত্মসাতকৃত অর্থের মধ্যে ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেডের চকবাজার শাখার মাধ্যমে ৩৫ লাখ তিন হাজার ১৫২ টাকা, আল আরাফাহ ইসলামী ব্যাংকের আনোয়ারা শাখার মাধ্যমে ২৮ লাখ ২০ হাজার ১৪৪ টাকা; প্রাইম ব্যাংকের বাঁশখালী শাখার মাধ্যমে ১ লাখ ১০ হাজার টাকা ও এসএ পরিবহন কুরিয়ার সার্ভিসের মাধ্যমে ৩ লাখ ৫০ হাজার টাকা আত্মসাৎ করেছেন। তাই দুদকের বিরুদ্ধে মানি লন্ডারিং প্রতিরোধ আইন, ২০১২ এর ৪(২) ধারা এবং দন্ডবিধি’র ১০৯ ধারা তৎসহ ১৯৪৭ সনের দুর্নীতি প্রতিরোধ আইন এর ৫(২) ধারায় মামলা দায়ের করেছে।

এছাড়া এজাহারভুক্ত আসামি মো. জয়নাল আবেদীনের বিরুদ্ধে ৬৯ লাখ টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে পৃথক আরো একটি ‍মামলা দায়ের করেছে দুদক। সংস্থাটির উপসহকারী পরিচালক মুহাম্মদ জাফর সাদেক শিবলী বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেন।

আরও পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।