লামায় ধর্মীয় গুরুদের নিয়ে আন্ত:ধর্মীয় সংলাপ

পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সমর্থনে ধর্মীয় ও সামাজিক সম্প্রীতি, ত্যাগ, সেবা, সহাবস্থান, পারস্পরিক সহনশীলতা সহ শ্রদ্ধাবোধের ওপর বান্দরবানের লামা উপজেলায় এক আন্ত:ধর্মীয় সংলাপ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

রবিবার (১৩ জুন) সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত বেসরকারি সংস্থা ডানিডা’র অর্থায়নে ও ইউএনডিপি’র সহযোগিতায় পৌরসভা এলাকার মধুঝিরিস্থ আইসিটি কনফারেন্স হলে সামাজিক সম্প্রীতি প্রকল্পের আওতায় গ্রাম উন্নয়ন সংগঠন (গ্রাউস) এ সংলাপের আয়োজন করে।

সরকারি মাতামুহুরী কলেজের কম্পিউটার ও আইসিটি বিভাগের শিক্ষক মুহাম্মদ ফরিদুল আলমের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সংলাপে ইসলাম ধর্মের আলোকে বিলছড়ি পুর্বপাড়া জামে মসজিদের খতিব মাওলানা মো.শফিকুর রহমান আজাদ, হিন্দু ধর্মের আলোকে কেন্দ্রীয় হরি মন্দিরের পুরহিত সমীর চক্রবর্তী ও খৃষ্টান ধর্মের আলোকে বিস্তারিত আলোচনা করেন মানিকজন পাড়া ব্যাপ্টিস্ট চার্জের প্রধান ক্যজহা ত্রিপুরা।

লামা সদর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মিন্টু কুমার সেনের সভাপতিত্বে সংলাপে বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা শেখ মাহাবুবুর রহমান প্রধান অতিথি ও উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মিল্কী রানী দাশ বিশেষ অতিথি ছিলেন। এছাড়া সংলাপে বিভিন্ন ধর্মীয় নেতা, ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য, শিক্ষক, সাংবাদিক, এনজিও কর্মী, ধমীয় প্রতিষ্ঠান প্রধান, স্থানীয় জনপ্রতিনিধি প্রমুখ অংশ গ্রহণ করেন। এছাড়া সংগঠনের ফোকাল পার্সন মেহেরুন্নেছা, কমিউনিটি মোবিলাইজার বাপ্পী চক্রবর্তী ও মেমং মার্মা উপস্থিত ছিলেন।

সংলাপে ধর্মীয় নেতারা বলেন, কিছু কিছু মানুষের অন্তরে ধর্মীয় অনুভূতি না থাকার কারণে সমাজে নানা অপরাধ সংঘটিত হচ্ছে। তাই মানুষের অন্তরে নিজ নিজ ধর্মীয় অনুভূতি লালন করলে সমাজ থেকে সকল অপরাধ দূর হবে। বজায় থাকবে ধর্মীয় ও সামাজিক সম্প্রীতি।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।