আলীকদম উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সিনিয়র সহ-সভাপতি ওমর ফারুক খুনের ঘটনায় আটক ৬

আলীকদম উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সিনিয়র সহ-সভাপতি, আইনজীবি ওমর ফারুক বাপ্পী
বান্দরবানের আলীকদম উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সিনিয়র সহ-সভাপতি, আইনজীবী ওমর ফারুক খুনের ঘটনায় তার কথিত স্ত্রী রাশেদা বেগমসহ ৬ জনকে আটক করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)।
পিবিআই পরিদর্শক (মেট্রো) সন্তোষ কুমার চাকমা জানিয়েছেন, সোমবার সকালে রাশেদা ও হুমায়ন নামে দুজনকে কুমিল্লা থেকে আটক করা হয়েছে। এরপর তাদের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে দুপুরে চট্টগ্রামের ইপিজেড এলাকায় অভিযান চালিয়ে আরো চারজনকে আটক করা হয়েছে, যারা হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত বলে তথ্য আছে পিবিআই’র কাছে।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক পিবিআই’র এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, ৬ জনকে গ্রেফতারের মধ্য দিয়ে হত্যাকাণ্ডে জড়িত পুরো টিমকেই ধরতে সক্ষম হয়েছে পিবিআই। একইসঙ্গে হত্যাকাণ্ডের পুরো রহস্যও উন্মোচন হয়েছে।
পুলিশ সূত্রে জানা যায়, গত শনিবার সকালে চট্টগ্রামের চকবাজার থানার কে বি আমান আলী রোডে বড় মিয়া মসজিদের সামনে একটি ভবনের নিচতলার বাসা থেকে বাপ্পীর মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এসময় তার হাত-পা ও মুখ টেপ দিয়ে মোড়ানো এবং পুরুষাঙ্গ কাটা অবস্থায় পাওয়া যায়।
বাপ্পী চট্টগ্রাম আদালতে আইন পেশায় ছিলেন। ২০১৩ সালে তিনি বারে অন্তর্ভুক্ত হন। ওমর ফারুক বান্দরবানের আলীকদম উপজেলার সদর ইউনিয়নের চৌমুহনী এলাকার বাসিন্দা আলী আহমদের ছেলে। নারীঘটিত কোন আক্রোশ থেকে বাপ্পী খুনের শিকার হতে পারেন বলেও জানা যায়। এই ঘটনার পর বাপ্পীর বাবা বাদি হয়ে চট্টগ্রামের নগরীর চকবাজার থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।