কাপ্তাইয়ের মহাবারুনী স্নানে পূণ্যার্থীর ভিড়

কাপ্তাইয়ের মহাবারুনী স্নানে পূণ্যার্থীদের একাংশ
হিন্দু ধর্মীয় কল্যান ট্রাস্ট রাঙামাটি এর সহকারী পরিচালক লিটন চন্দ্র সরকার আসলেন সীতাঘাট মন্দিরের মহাবারুনী স্নানে। এসে মনোরম প্রাকৃতিক পরিবেশ এবং ভক্তবৃন্দ দেখে মুগ্ধ হলেন। স্নানে আসা কনক বড়ুয়া, সুভাষ দাশ, বর্ষা দাশ, রুমি বৈদ্য, চুমকি দাশ রাউজান থেকে আসা ভক্ত বিপ্ল­ব দে, চৈতি চৌধুরী সহ অনেকের সাথে কথা হলো, তারা মন্দিরে এসে নান্দনিক পরিবেশ দেখে মুগ্ধ হলেন, পাশাপাশি কর্ণফুলি নদীর পাশে অবস্থিত দুই পাশে সিঁড়ি নির্মানের দাবি জানান।
এইভাবে জাতি ধর্ম বর্ণ নির্বিশেষে রাঙামাটি জেলা এবং চট্রগ্রাম জেলার বিভিন্ন উপজেলা হতে হাজারোও ভক্তের উপস্থিতিতে মুখরিত হয়ে উঠে কাপ্তাই সীতাঘাট মন্দির এবং এর আশে পাশে এলাকা। মধুকৃষ্ণা ত্রয়োদশী উপলক্ষে গত ১৪ মার্চ হতে শুরু হয় এই উৎসব চলে ১৬ মার্চ ভোর পর্যন্ত। মহাপ্রসাদ বিতরন, নামসংকীর্ত্তন, আলোচনা, ভোগআরতি সহ নানা অনুষ্ঠানমালায় সাজানো হয় এইবারের মহাবারুনী স্নান অনুষ্ঠান।
সীতাঘাট মন্দিরের অধ্যক্ষ জ্যোর্তিময়ানন্দ ব্রক্ষচারীর জানান,আজ থেকে ১৬ বছর আগে এই সীতাঘাট মন্দিরে বারুস্নান এর সূচনা হয়। ধীরে ধীরে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত হতে ভক্ত সমাগম বাড়তে থাকে। তিনি এই সরকারের কাছে মন্দিরের অবকাঠামো গড়ে তোলার দাবি জানান। এদিকে মন্দির প্রাঙ্গণে ১৫ মার্চ অনুষ্ঠিত হয় আলোচনা অনুষ্ঠান। মন্দির কমিটি সভাপতি রতন কান্তি দাশের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্হিত ছিলেন রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের সদস্য প্রকৌশলী থোয়াইচিং মং মার্মা।
মন্দির কমিটির সাংস্কৃতিক সম্পাদক ঝুলন দত্তের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন কাপ্তাই উপজেলা আ’লীগ সভাপতি অংসুইছাইন চৌধুরী, হিন্দু কল্যান ট্রাস্টের রাংগামাটি এর সহকারী পরিচালক লিটন চন্দ্র সরকার, কাপ্তাই পানি বিদুৎ কেন্দ্রের উপ মহাব্যবস্থাপক তপন কুমার মল্লিক, কাপ্তাই উপজেলা পুজা উদযাপন কমিটির সভাপতি দীপক কুমার ভট্রাচার্য্য প্রমুখ। আলোচনার শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন সীতাঘাট মন্দিরের সাধারণ সম্পাদক আশীষ কুমার দে।।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।