কাপ্তাইয়ে পৃথক ঘটনায় ২জনের মৃত্যু : নিখোঁজ ১

রাঙামাটির কাপ্তাইয়ের শিলছড়ি এলাকাস্থ টিম্বার সংলগ্ন কর্ণফুলী নদীতে আজ বৃহস্পতিবার বিকেলে গোসল করতে নেমে আনোয়ারুল আরেফিন অনু (১৯) ও চিৎমরমের মুসলিম পাড়া এলাকায় বিদ্যুৎ স্পৃষ্ট হয়ে ইকবার হোসেন কালু (১৬) নামে দুইজন মারা গেছে। এছাড়া এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত নদীতে ডুবে নিখোঁজ রয়েছে হামেদ হাসান (৩০) নামে এক পর্যটক।
কাপ্তাই ও চন্দ্রঘোনা থানা সুত্রে জানা যায়, কাপ্তাইয়ের শিলছড়িস্থ বাংলাদেশ টিম্বার এন্ড ফ্লাই উডের (২য় ইউনিট) মহা ব্যবস্থাপকের এক আত্মীয় চট্রগ্রামের হালিশহরের খান বাড়ির আরিফ খান বৃহস্পতিবার স্ব-পরিবারে কাপ্তাই ঘুরতে আসে। পরে দুপুরে পর তার ছেলে আনোয়ারুল আরেফিন অনু (১৯) ও চট্টগ্রামের চকবাজারের বাদুরতলার মো. কায়কোবাদের ছেলে হামেদ হাসান (৩০) গোসল করতে কর্ণফুলীতে নেমে তলিয়ে যায়।
এদিকে ঘটনাটি জানাজানি হলে স্থানীয়রা কাপ্তাই ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স এবং নৌবাহিনীর ডুবুরীর দলকে খবর দিলে বিএন শহীদ মোয়াজ্জেম ঘাটির লে. কর্ণেল কবির উদ্দিনের নেতৃত্বে কাপ্তাই নৌবাহিনীর ডুবুরী দল উদ্ধার অভিযান চালিয়ে বিকাল সাড়ে ৪’টার সময় আনোয়ারুল আরেফিনের মরদেহ উদ্ধার করে। এদিকে এই রিপোর্ট লিখা পর্যন্ত এখনো হামেদ হাসানকে উদ্ধার করতে সক্ষম হয়নি ডুবুরী দল। তবে অভিযান চলমান রয়েছে বলে জানা যায়।
এদিকে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন, কাপ্তাই উপজেলা চেয়ারম্যান মো. মফিজুল হক, কাপ্তাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশ্রাফ আহমেদ রাসেল, কাপ্তাই থানা অফিসার ইনচার্জ সৈয়দ মো. নূর, চন্দ্রঘোনা ইউপি চেয়ারম্যান মো. আনোয়ারুল ইসলাম চৌধুরী বেবিসহ আরও অনেকে।
অন্যদিকে, কাপ্তাইয়ের চিৎমরমের মুসলিমপাড়া এলাকায় মো. সিরাজুল ইসলামের (প্রকাশ বার্মাইয়া সিরাজ) বাড়ি থেকে ১০০ গজ দুরে স্থানীয় একটি দুপুর ১টার সময় বৈদ্যুতিক খুঁটিতে ত্রুটি সাড়াতে গিয়ে ঘটনাস্থলে স্পৃষ্ট হয় তার ছেলে মো. ইকবাল হোসেন কালু (১৬)। পরে ঘটনাস্থল হতে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে খ্রীষ্টিয়ান হাসপাতালে নিতে সেখানে কর্তব্যরত ডাক্তারা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
চিৎমরমের সাবেক ইউপি সদস্য মো. রাজ্জাক আলম বলেন, মো. ইকবাল হোসেন কালু পারিবারিক কাজ করতে গিয়েছি বিদ্যুৎ স্পষ্ট হয়েছে।
কাপ্তাই থানা অফিসার ইনর্চাজ সৈয়দ মো. নূর ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, বিকেল সাড়ে তিনটার শিলছড়িতে ঘটনাটি ঘটেছে। অন্যদিকে চন্দ্রঘোনা থানা অফিসার ইনচার্জ আশ্রাফ উদ্দিন জানান, চিৎমরমের মুসলিম পাড়া এলাকায় এমন ঘটনার খবর পাওয়া গিয়েছে। তবে বিষয়টি আমরা মাত্র জানতে পেরেছি।
কাপ্তাই উপজেলা চেয়ারম্যান মো. মফিজুল হক জানান, আনোয়ারুল আরেফিনকে আশঙ্কজনক অবস্থায় উদ্ধার করে চন্দ্রঘোনা খ্রীষ্টিয়ান হাসাপাতালে নেওয়ার সময়ই সে আমাদের ছেড়ে চলে যায়।
কাপ্তাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশ্রাফ আহমেদ রাসেল ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান ঘটনাটি আসলেই খুব বেদনা দায়ক। কিছুদিন আগেও ঢাকা থেকে কয়েকজন পর্যটক কাপ্তাই ঘুরতে এসে নদীতে গোসল করতে নেমে মৃত্যুবরণ করেন।

আরও পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।