খাগড়াছড়িতে ১৬ জেএমবি’র বিরুদ্ধে পরবর্তী সাক্ষ্যগ্রহণ ১০ সেপ্টেম্বর

বুধবার কড়া নিরাপত্তা জেএমবি’র ১৩ সদস্যকে খাগড়াছড়ি জেলা ও দায়রা জজ আদালতে হাজির করা হয়
২০০৫ সালের সিরিজ বোমা হামলা মামলার স্বাক্ষী উপস্থিত না থাকায় খাগড়াছড়িতে জেএমবি’র ১৬ সদস্যের বিরুদ্ধে পূর্ব নির্ধারিত স্বাক্ষ্য গ্রহণের তারিখ আগামী ১০ সেপ্টেম্বর ধার্য্য করেছে জেলা ও দায়রা জজ আদালত। বুধবার বেলা সাড়ে ১১ টায় কড়া নিরাপত্তা জেএমবি’র ১৩ সদস্যকে জেলা ও দায়রা জজ আদালত রত্নেশ্বর ভট্টাচার্য্যরে আদালতে হাজির করা হয়। এদের মধ্যে ১০ জেএমবি সদস্যকে দেশের বিভিন্ন কারাগার থেকে আদালতে হাজির করা হয় এবং বাকী ৩ জন জামিনে থাকায় আদালতে এসে হাজিরা দেয়।
খাগড়াছড়ি জেলা ও দায়রা জজ আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর(পিপি) এডভোকেট বিধান কানুনগো জানান, ২০০৫ সালের ১৭ আগস্ট খাগড়াছড়ির বিভিন্ন স্থানে জেএমবি’র সিরিজ বোমা হামলার ঘটনায় সদর থানায় জিআর ১৯৩/০৫ দায়ের করা হয়। ওই মামলার ১৬ আসামীর মধ্যে ১৩ আসামীর বিরুদ্ধে সাক্ষ্য গ্রহণের জন্য বুধবার আদালতে উপস্থিত করা হয়। কিন্তু স্বাক্ষীরা হাজির না হওয়ায় খাগড়াছড়ি জেলা ও দায়রা জজ রত্নেশ্বর ভট্টাচার্যের আদালত স্বাক্ষী গ্রহণের পরবর্তী তারিখ আগামী ১০ সেপ্টেম্বর নির্ধারণ করে।
জেএমবি সদস্য রুহুল আমিন সুফী, রুহুল আমিন, মো: ফারুক হোসেন, মো: মঞ্জু মিয়া, মো: ইসমাইল হোসেন, আইয়ূব আলী, আরিফুল ইসলাম, মো: আসাদুজ্জামান, এরশাদ হোসেন, আবুল কালাম আসাদকে বুধবার আদালতে হাজির করা হয়। জামিনে থাকা এমদাদুল হক, হাসান আল মাহমুদ ও আ: করিম আদালতে হাজির ছিল। অসুস্থ থাকায় মো: শহিদুল ইসলাম আদালতে অনুপস্থিত ছিল। এছাড়া এ মামলায় মো: বেলাল নামে এক জেএমবি সদস্য পলাতক এবং এনায়েত উল্লাহ নামে আরেক আসামী সাজাপ্রাপ্ত হয়ে কারাভোগ করছে।
উল্লেখ্য, ২০০৫ সালের ১৭ আগস্ট দেশের বিভিন্ন জেলার সাথে একযোগে খাগড়াছড়ির মুক্তমঞ্চ, আদালত প্রাঙ্গণ ও হাসপাতাল এলাকায় সিরিজি বোমা হামলা চালায় জেএমবি।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।