খাগড়াছড়ির নিবেদিতা রোয়াজা’র ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার ঢাকায়

প্রতারণা করে বিয়ে করেছিলেন মামুন

ভালোবেসে ধর্মান্তরিত হয়ে কতিথ পুলিশ কর্মকর্তা মামুন মিল্লাতকে বিয়ে করেছিলেন খাগড়াছড়ি সদরের ঠাকুরছড়া পাড়ার নিবেদিতা রোয়াজা ওরফে নুসরাত। বিয়ের পর জানতে পারেন, মামুন পুলিশ কর্মকর্তা নন। আর এসব নিয়ে পরিবারে কলহ লেগেই থাকতো, আর এই কলহ থেকে নিবেদিতা রোয়াজা আত্মহত্যা করতে পারে বলে ধারণা করছে পুলিশ। রাজধানীর আগারগাঁওয়ের সংসদ সচিবালয় কোয়ার্টার থেকে নিবেদিতা রোয়াজা ওরফে নুসরাত জাহান (২৮) এর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯ নম্বর থেকে ফোন পেয়ে আজ শনিবার (১২ জুন) মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনার পর নুসরাতের স্বামী মামুন মিল্লাত পালিয়েছেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, আগারগাঁওয়ের সংসদ সচিবালয় বি-২ নম্বর কোয়ার্টারে নুসরাত তার স্বামী মামুন মিল্লাতের সঙ্গে সাবলেট থাকতেন। শনিবার বেলা ১১টা পর্যন্ত মামুন মিল্লাতকে বাসায় দেখতে পান প্রতিবেশীরা,এরপর তিনি উধাও হয়ে যান। দুপুরে প্রতিবেশীরা ডাকাডাকি করে নুসরাতের সাড়া পাননি। এতে তাদের সন্দেহ হলে জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯ নম্বরে ফোন করেন। পরে আগারগাঁও থানার পুলিশ এসে বাসার দরজা ভেঙে সিলিং ফ্যানের সঙ্গে গলায় ওড়না প্যাঁচানো অবস্থায় নুসরাতকে ঝুলতে দেখেন। মরদেহ নামিয়ে বিকেলে ময়নাতদন্তের জন্য শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

পুলিশের তেজগাঁও বিভাগের উপকমিশনার মো. শহিদুল্লাহ সংবাদমাধ্যমকে বলেন, ২০১৯ সালে মামুন মিল্লাতকে বিয়ে করেন ক্ষুদ্র জাতিগোষ্ঠীর নিবেদিতা রোয়াজা ওরফে নুসরাত। মামুন নিজেকে ৩৮তম বিসিএসে নিয়োগ পাওয়া পুলিশ কর্মকর্তা পরিচয় দিয়ে নুসরাতকে বিয়ে করেছিলেন। কিন্তু নুসরাত বিয়ের পর জানতে পারেন, মামুন পুলিশ কর্মকর্তা নন। এ নিয়ে তাদের মধ্যে কলহ শুরু হয়। প্রায় প্রতিদিনই তাদের মধ্যে ঝগড়া হত।

মো. শহিদুল্লাহ আরও জানান, মামুন পুলিশের কেউ নন, তিনি প্রতারক। মামুনের প্ররোচনায় নুসরাত আত্মহত্যা করেছেন বলে মনে হচ্ছে। এ ব্যাপারে আত্মহত্যায় প্ররোচনার অভিযোগে মামুন মিল্লাতের বিরুদ্ধে শেরেবাংলা নগর থানায় মামলা হবে।

আরও পড়ুন
1 মন্তব্য
  1. মানুষ বলেছেন

    কিসের প্রতারনা।
    মেয়েরা এইসব পালতু ছেলেদের প্রেমে পরে, বিয়ে করে না করে হোটেলে গিয়ে রাত কাটায় তখন চিন্তা করেনা তাদের কে যে ছেলেটা তার জীবন নস্ট করছে। পরে আসে ধর্ষিতা, গর্ভধারন, নির্যাতন বলে নিজেকে।
    আরে মা, বোন আপনারা সব কিছু করার আগে পুরুষ টারে ভালো করে খোজ নিন, ও বললে যে ওর সাথে এখা অন্ধকারে সময় কাটাতে হবে জোর করলেও যাবেন না। কারণ আপনারা নারি জাতি আপনাদের দোষ না হলে দোষটা চোখে পরবে সবার আগে।

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।