বান্দরবানকে পর্যটন নগরী হিসেবে গড়ে তোলার চেষ্টা করছি : মেয়র ইসলাম বেবী

বান্দরবানকে পর্যটন নগরী হিসেবে গড়ে তোলার চেষ্টা করে যাচ্ছেন স্থানীয় পৌর মেয়র মোহাম্মদ ইসলাম বেবী। তিনি বলেন, ‘আমার সময়কালে বান্দরবানকে পর্যটন নগরী হিসেবে গড়ে তুলতে আপ্রাণ চেষ্টা করছি।

পৌরসভার মেয়র হিসেবে দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকে আমি সাধ্যমতো চেষ্টা করেছি দল-মত নির্বিশেষে এলাকার উন্নয়ন করার। বান্দরবানে লাল ব্রিজ, দুটি সাঙ্গু ব্রিজ, কলেজ রোড, পুলিশ লাইন, বালাঘাটা সড়ক, শহীদ মিনার, ক্যচিংঘাটাসহ আনাচে-কানাচে সরকারি বরাদ্দে রাস্তার সংস্কার করেছি। এ ছাড়াও বিভিন্ন বিদ্যুৎবিহীন এলাকায় বৈদ্যুতিক লাইনের সংযোগ স্থাপন করেছি। এতে সাধারণ মানুষের উপকার হয়েছে।

মেয়রের পাশাপাশি বান্দরবান জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদকও ইসলাম বেবী। ১৯৬৮ সালে তৎকালীন পাকিস্তানে বান্দরবান জেলা ছাত্র লীগের প্রথম প্রতিষ্ঠাকালীন সভাপতি ছিলেন তিনি। ১৯৭৬ সালে তিনি জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক ছিলেন। এরপর জেলা আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক, যুগ্ম সম্পাদক এবং সর্বশেষ ২০১৫ সাল থেকে বর্তমানে জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক পদে আছেন।

বান্দরবানকে পূর্ণাঙ্গ পর্যটন নগরী হিসেবে গড়ে তুলতে না পেরে ক্ষোভ প্রকাশ করে তিনি জানান, আমরা এখনও বান্দরবান শহরকে পূর্ণাঙ্গ পর্যটন নগরী হিসেবে গড়ে তুলতে পারিনি। চেষ্টা করে যাচ্ছি সুন্দর একটি পর্যটন শহর উপহার দেওয়ার জন্য। সবচেয়ে বড় দুঃখের বিষয়, সাধারণ এলাকাবাসীর মধ্যে সচেতনতা সৃষ্টি করতে ব্যর্থ হচ্ছি। বান্দরবান শহরকে সুন্দর রাখতে পৌরসভার পক্ষ থেকে জনসচেতনতা তৈরি করতে অনেকবার শহরে মাইকিং, আলোচনা সভা করছি, যাতে করে নির্দিষ্ট স্থানে ময়লা-আবর্জনা ফেলা হয়; কিন্তু সকাল ৮টার পর দেখি একই চিত্র।

সাধারণ জনগণের পাশাপাশি পর্যটকদের সচেতন করতে কোনো আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার প্রয়োজন আছে কি না এমন প্রশ্নে পৌর মেয়র বলেন, ‘মোটকথা, সবাইকে আইন মেনে চলতে হবে।’ এক্ষেত্রে তিনি জাতীয় পর্যায়ে সচেতনতার কথা তুলে ধরেন। উন্নয়নশীল দেশগুলোর উদাহরণ টেনে তিনি বলেন, ‘বিশ্বের উন্নত দেশ যেমন মালয়েশিয়া, সিঙ্গাপুর, কাতারে একটুকরো কাগজ পাবেন না। কারণ ওই দেশের মানুষ অনেক বেশি সচেতন। ওইসব দেশের ফর্মুলা আমাদের দেশেও প্রয়োগ করতে হবে।’ পৌরসভার বর্জ্য ব্যবস্থাপনা বিষয়ে তিনি বলেন, ‘অধিকাংশ পৌরসভায় ঢুকলে দেখা মিলবে সুস্বাগতম ব্যানারের পাশে বড় বড় ময়লার স্তূপ, সেটা রক্ষণাবেক্ষণ করার মতো উদ্যোগ কারও নেই। সেক্ষেত্রে বান্দরবান সেই জায়গা থেকে কিছুটা ভিন্ন বলা যায়। কারণ শহর এলাকা থেকে দূরে একটা পাহাড়ি জায়গায় শহরের সব ময়লা নির্দিষ্ট স্থানে ফেলা হয়। যে কারণে ময়লার স্তূপ সৃষ্টি হয় না।’

মেয়র হওয়ার পেছনে কাদের সহযোগিতা সবচেয়ে বেশি পেয়েছেন? এমন প্রশ্নের জবাবে পৌর মেয়র ইসলাম বেবী বলেন, সাধারণ জনগণ ছিল আমার ক্ষমতার মূল উৎস। জনগণের ভালোবাসা দিয়ে আমি সর্বোচ্চ ভোট পেয়েছি। বিগত নির্বাচনে কোনো মেয়র এত ভোট আশাও করেনি। তা ছাড়া কোনো মেয়র এত ভোটও পাননি।

আরও পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।