বান্দরবানে হোটেলে আটকে রেখে ১০ দিন ধরে ছাত্রীকে ধর্ষণ : আটক ১

বান্দরবানের অপহরণ করে আবাসিক হোটেলে ১০ দিন ধরে আটকে রেখে এক ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে এক যুবককে আটক করেছে পুলিশ। আটকর্কৃতের নাম উশৈসিং মারমা। সে জেলার রোয়াংছড়ি উপজেলার তারাছা ইউনিয়নের ৭ ওয়ার্ডের ঘেরাউ মুখ পাড়া বাসিন্দা অংশৈনু মারমার ছেলে।
স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে,বান্দরবানের রোয়াংছড়ি সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণীর এক ছাত্রীকে (আদিবাসী) জেলার রোয়াংছড়ি থেকে গত ২৩ এপ্রিল অপহরণ করা হয়। এরপর থেকে তার কোন খোঁজ পাওয়া যাচ্ছিলনা। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শুক্রবার সকাল ১০টা দিকে জেলা শহরের বাস স্টেশন থেকে ধর্ষককে আটক ও অপহৃতকে উদ্ধার করে পুলিশ।
ছাত্রীর পিতা চিংসিংঅং মারমা বলেন, রোয়াংছড়িতে পড়ালেখা করানো জন্য ছোট ভাইয়ের মেয়ের সাথে দুই জনকে বাসা ভাড়া করে রেখেছে। আমার ছোট ভাই গত ২৩ এপ্রিলের রাত জানায় মেয়ের নিখোঁজ। শুনেছি এই ছেলে আমার মেয়েকে অপহরণ করেছে।
আরো জানা গেছে, উপজেলার তারাছা ইউনিয়নের ৭ ওয়ার্ডের ঘেরাউ মুখ পাড়া বাসিন্দা অংশৈনু মারমার ছেলে উশৈসিং এই ছাত্রীকে রোয়াংছড়ি থেকে বান্দরবানে নিয়ে আসে। পরে শহরের মাস্টার গেস্ট হাউসের কর্মরত উশৈসিং মারমার ছোট ভাই থোয়াইহ্লাচিং মারমা এর সহযোগিতায় থোয়াইচপ্রু মাস্টার গেস্ট হাউসের বিনামূল্যে হোটেলে থাকতে দেন। এই হোটেল প্রায় ৫ দিনের থাকার পর স্থান পরিবর্তন করে থাকেন অতিথি হোটেলে।
রোয়াংছড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো: শরিফুল ইসলাম বলেন, খবর পেয়ে ধর্ষকসহ ছাত্রীকে থানার নিয়ে আসা হয়েছে। আসামি উশৈসিং মারমার বিরুদ্ধে অপহরণসহ ধর্ষণের মামলা দায়ের করা হয়েছে।

আরও পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।