মানিকছড়িতে রেস্টুরেন্ট নিভে গেছে এক নির্মাণ শ্রমিকের জীবনবাতি

খাগড়াছড়ির মানিকছড়িতে গত ৪ ফেব্রুয়ারি বিকালে নবনির্মিত রেস্টুরেন্ট ‘কাঠগোলাপে’ সাজ-সজ্জা করতে গিয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে ঘটনাস্থলে নির্মাণ শ্রমিক সুজন মিয়া(২৪) নিহত ও শ্রমিক মো. রুবেল মিয়া (২০) গুরুতর আহত হয়েছে।
পুলিশ ও হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, মানিকছড়ি উপজেলার টাউন হল সংলগ্ন ভূইঁয়া মার্কেটে নবনির্মিত রেস্টুরেন্ট‘কাঠ গোলাপ’এর উদ্বোধন আগামী ৮ ফেব্রুয়ারি। ফলে দোকান নির্মাণ শেষে উদ্বোধনকে ঘিরে সাজ-সজ্জা চলছিল। গত সোমবার বিকাল পৌনে ৫টার দিকে নির্মাণ শ্রমিক সুজন মিয়া (২৪) ও মো. রুবেল মিয়া (২০) দোকানে সামনে চট্টগ্রাম-খাগড়াছড়ি সড়কের পার্শ্বের গাছে উঠে ঝাড়বাতি সংযোগ দিতে গিয়ে অসাবধানতা ৩৩ কেভি লাইনে সংযোগ তার লেগে যায়। এতে ঘটনাস্থলে শ্রমিক দু’জন মাটিতে লুটিয়ে পড়ে এবং সুমন মিয়া (২৪) নিহত হয়।
অপর শ্রমিক মো. রুবেল মিয়া (২৫) গুরুতর আহত। পথচারী ও অন্য নির্মাণ শ্রমিকরা দু’জনকে উদ্ধার করে উপজেলা হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক সুমন মিয়া (২৪) কে মৃত ঘোষণা করেন এবং অপর শ্রমিক মো. রুবেল মিয়া (২৫) কে চমেক হাসপাতালে প্রেরণ করেন। নিহত সুজন নোয়াখালী কবির হাট এলাকার আবুশ বাশারের ছেলে। আহত রুবেল চট্টগ্রামের আনোয়ারা উপজেলার মো: নুরুল আলমের ছেলে।
খবর পেয়ে মানিকছড়ি থনা পুলিশ হাসপাতালে ছুঁটে আসেন এবং সরেজমিন পরিদর্শন করে নিহত শ্রমিকের লাশ পুলিশ হেফাজতে নেন।
উল্লেখ্য যে অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ সুবেদার (আর.আই) মরহুম আবদুল মতিন ভূইঁয়ার সেজ ছেলে ও আবুল খায়ের লিমিটেড কোম্পানীর প্রধান হিসাব রক্ষক মো. মাসুম ভূইঁয়া সম্প্রতি ঠিকাদার নিযুক্ত করে বাড়ী নির্মাণ করছিল। বাড়ীর সামনে দোকান প্লটে আধুনিক সাজে একটি রেস্টুরেন্ট-এ ‘কাঠ গোলাপ’ নির্মাণ করেন। যা আগামী ৮ ফেব্রুয়ারি উদ্বোধন হওয়ার কথা। সে লক্ষে ওই ভবণের নির্মাণ শ্রমিকরা ৪ ফেব্রুয়ারি দোকানের সামনে লাইটিং এর কাজ করছে। বিকালে সড়কের পাশ্বে গাছে উঠে ঝাড়বাতি সংযোগ দিতে গিয়ে এ দূর্ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর পর অন্য শ্রমিকরা আত্মগোপন করায় নিহত ও আহত শ্রমিকের বিস্তারিত ঠিকানা জানা যায়নি। তবে নিহত সুজন নোয়াখালি এবং আহত রুবেল চট্টগ্রামের আনোয়ারার বাসিন্দা। থানার অফিসার ইনচার্জ মুহাম্মদ রশীদ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, দুর্ঘটনার খবর পেয়ে সরজমিনে ওসি তদন্তসহ পুলিশ পাঠানো হয়।

আরও পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।