রাঙামাটিতে নিহত তরুণীর পরিচয় মিলেছে

রাঙামাটিতে নিহত তরুণী জেসমিন আক্তার
রাঙামাটিতে নিহত তরুণী জেসমিন আক্তার
রাঙামাটিতে উদ্ধারকৃত ২১ সেপ্টেম্বর অজ্ঞাত তরুণীর লাশের পরিচয় মিলেছে। বেওয়ারিশ হিসাবে দাফনের কয়েকদিন পর মরদেহের প্রকৃত পরিচয় পাওয়া যায় বলে শুক্রবার পুলিশ সূত্র নিশ্চিত করেছে।
পুলিশ জানান,নিহত তরুণীর প্রকৃত নাম জেসমিন আক্তার (২১)। সে চট্টগ্রাম জেলার রাঙ্গুনিয়া উপজেলার সাবেক ইউনিয়নের বাসিন্দা নূর মোহাম্মেদের মেয়ে নিহত জেসমিনের পরিবার সূত্রে জানা গেছে, জেসমিন তার প্রেমিক এহছানুল রাহেদের সাথে প্রেমের সম্পর্কের টানে বাড়ি থেকে পালিয়ে যায়। জেসমিনের পরিবারের অভিযোগের ভিত্তিতে এর কিছুদিন পর রাঙামাটির একটি আবাসিক হোটেল থেকে তাদের দু’জনকে আটক করে পুলিশ। এরপর চলতি বছরের ১৬ আগস্ট জেসমিনের প্রেমিক রাহেদ তার পাঁচ-ছয়জন বন্ধু নিয়ে জেসমিনকে বাসা থেকে জোরপূর্বক তুলে নিয়ে যায়। এরপর জেসমিনের কোন সন্ধান পাওয়া যায়নি।
এদিকে, জেসমিনের পরিবার গত ২২ সেপ্টেম্বর বিভিন্ন দৈনিক পত্রিকায় প্রকাশিত রাঙামাটিতে অঞ্জাতনামা তরুণীর লাশ উদ্ধারের সংবাদ পেয়ে রাঙামাটিতে ছুটে এসে কোতয়ালী থানায় যোগাযোগ করে জেসমিনের কাপড়সহ বিভিন্ন আলামত দেখে তারা নিশ্চিত করে এটি তাদের মেয়ে।
এ হত্যাকান্ডে নিহত জেসমিনের পিতা নূর মোহাম্মদ প্রেমিক এহছানুল নেওয়াজ রাহেদকে প্রধান ও স্থানীয় যুবক আব্দুল মান্নান, মো: সাহিদকে আসামী করে রাঙামাটি কোতয়ালী থানায় হত্যাকান্ডের অভিযোগ এনে মামলা দায়ের করে। শোকাহত জেসমিনের পরিবারের দাবি, জেসমিনকে তার প্রেমিক রাহেদ হত্যা করেছে। এ হত্যাকান্ডের জন্য তারা খুনিদের দৃষ্টান্ত শাস্তি দাবি করে।
রাঙামাটির কোতয়ালী থানার এসআই লিমন বোস জানান, জেসমিন হত্যাকান্ডে জড়িত আসামীদের গ্রেফতারের সবরকম প্রচেষ্টা চালানো হচ্ছে।
উলে­খ্য গত ২১ সেপ্টেম্বর বুধবার বিকেল সাড়ে ৫টায় রাঙামাটির ঝগড়াবিল মৌজার ডিয়ার পার্ক এলাকার ধর্মাঙ্কুর বৌদ্ধ বিহারের পাশ থেকে এক অজ্ঞাত তরুণীর লাশ উদ্ধার করে পুলিশ, লাশের পরিচয় না পাওয়ায় বেওয়ারিশ হিসাবে দাফন করে পুলিশ।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।