রাঙামাটিতে ৪০ পূজামন্ডপে দূর্গোৎসব

durgaরাঙামাটিতে আসন্ন শারদীয়া দূর্গোৎসবের প্রস্ততি প্রায় সম্পন্ন হয়ে এসেছে। এখন শুধু উৎসবের অপেক্ষার পালা। এদিকে রাঙামাটিতে পূজামন্ডপগুলোতে প্রতিমা তৈরী ইতোমধ্যে শেষ, এখন চলছে দেবী দূর্গাকে শিল্পীর তুলির আচঁড়ের মাধ্যমে প্রতিমাকে স্বয়ংসম্পুর্ন করে তোলা হবে। চলছে প্রতিমাকে বিভিন্ন রঙে রাঙিয়ে তোলার কাজ। জেলার প্রত্যেকটি পূজা মন্ডপে চলছে সাজসজ্জার কাজও।
জেলা পূজা উদযাপন পরিষদ সূত্রে জানা গেছে, এবছর শারদীয়া দূর্গোৎসবে রাঙামাটির দশ উপজেলায় সর্বমোট ৪০টি পূজা মন্ডপে দূর্গোৎসব অনুষ্টিত হবে। এর মধ্যে রাঙামাটি সদর উপজেলায় ১৪টি, কাউখালীতে ৪টি, কাপ্তাইয়ে ৭টি, লংগদুতে ২টি, বাঘাইছড়িতে ৪টি, নানিয়ারচরে ২টি, জুড়াছড়িতে ১টি, বিলাইছড়িতে ১টি, বরকলে ২টি ও রাজস্থলীতে ৩টি। ইতোমধ্যে এই সব উপজেলায় উৎসবের প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। এখন শুধু উৎসব দিনের অপেক্ষার পালা। জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে আসন্ন শারদীয়া উৎসব শান্তিপূর্ন ও উৎসবমূখর পরিবেশে পালনের জন্য আইন-শৃংখলাসহ সকল ধরনের প্রস্তুতি গ্রহনের উদ্যোগ নিয়েছে।
অপরদিকে, রাঙামাটির কাঠালতলীস্থ শ্রী শ্রী দূর্গা মাতৃমন্দির পূজা উদযাপন কমিটির সা: সম্পাদক রবীন সেন বলেন, আমাদের প্রতিমা সাজানো কাজ শেষ হয়েছে। এবার অত্যন্ত উৎসাহ উদ্দীপনা নিয়ে এ অঞ্চলের পাহাড়ী-বাঙালী সকল সম্প্রদায়ের মিলন মেলায় পরিনত হবে এবারের দূর্গাূুজা উৎসব এ প্রত্যাশা করছি।
এদিকে, জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি অমর কুমার দে জানান, এ বছর রাঙামাটি জেলার দশ উপজেলায় ৪০টি পূজামন্ডপে দূর্গোৎসব উদযাপিত হবে। পূজামন্ডপের সকল প্রস্তুতিও সম্পন্ন হয়েছে। তাছাড়া প্রশাসনের পক্ষ থেকেও নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে সকল ধরনের ব্যবস্থা নিচ্ছে। তিনি আরো জানান,এ বছর রাঙামাটি সদরের ৬ টি পূজামন্ডপকে ঝুঁিকপূর্ণের তালিকায় রাখা হয়েছে। তিনি বলেন, এসব পূজা মন্ডপগুলোতে প্রচুর লোক সমাগম হয়।
এ প্রসঙ্গে রাঙামাটি পুলিশ সুপার সাঈদ তারিকুল হাসান বলেন, দূর্গোৎসবের সার্বিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য তিনস্তর বিশিষ্ট নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়েছে। প্রাথমিকভাবে সাদা পোশাকধারী পুলিশ থাকবে,দ্বিতীয়ত ট্রাফিক পুলিশ যানবাহন নিয়ন্ত্রনসহ সামগ্রিক পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনের জন্য কর্মরত থাকবে। তৃতীয়স্তরে সাদা পোশাকে গোয়েন্দা নজরদারী বৃদ্ধি করা হচ্ছে। আমরা আশা করছি এ দূর্গা পুজা উৎসব উৎসবমুখর পরিবেশে অনুষ্ঠিত হবে। পুলিশ সুপার জানান, বড় বড় যে পূজামন্ডপগুলো রয়েছে সেগুলোতে সিসি টিভি ক্যামেরা স্থাপন করা হবে।

আরও পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।