রোয়াংছড়িতে বাউন্ডারি ওয়াল নির্মাণ কাজে নিম্নমানের ইট ব্যবহারের অভিযোগ

রোয়াংছড়িতে বাউন্ডারি ওয়াল নির্মাণ কাজে নিম্নমানের ইট
বান্দরবানে রোয়াংছড়ি উপজেলা আলেক্ষ্যং ইউনিয়নে স্থানীয় সরকার (এলজিইডি) বিভাগে ২০১৭-১৮ অর্থ সালের বরাদ্দে এডিপি প্রাক্কলিত মূল্য ২লাখ ৮০ আশি হাজার টাকা ব্যয়ে ওয়াগই পাড়া মহিলা সমিতি ঘর নির্মাণে কাজে নিম্নমানের ইট ব্যবহার করা অভিযোগ পাওয়া গেছে।
রোয়াংছড়ি স্থানীয় সরকার (এলজিইডি) বিভাগে ২০১৭-১৮ অর্থ সালের প্রকল্প বাস্তবায়নে টেন্ডার আহবান করলে বান্দরবানে বাসিন্দা ঠিকাদার মো: নজরুল কাজটি পেয়ে নিম্নমানের ইট ব্যবহার করে ব্যাপক অনিয়মে সমিতির ঘর নির্মাণ করছেন।
সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, ওয়াগই পাড়া মহিলা সমিতি ঘর নির্মাণে কাজে নিম্নমানের দুই নাম্বার ইট ও কম দামি সিমেন্ট ব্যবহার করা হচ্ছে। এ ব্যাপারে মহিলা সমিতি সভানেত্রী অনিতারাণী তঞ্চঙ্গ্যা ও স্থানীয়রা অভিযোগ করে বলেন, উপজেলা স্থানীয় সরকার (এলজিইডি) দেখভাল দায়িত্বে থাকলেও কোন খবর রাখেন না। অফিসের কর্মকর্তাদের অনুপস্থিতিতে ব্যাপক অনিয়ম করে চলেছে। আমরা এ নির্মাণ কাজের নীতি মালা কি রকম আছে তা জানে না। তবে ঠিকাদারকে ভাল ভাবে কাজ করতে বলা হয়েছে। তারপরও ঠিকাদার ইচ্ছে মতোই নির্মাণ কাজটি চালিয়ে যাচ্ছে। অনেক বার ঠিকাদারকে বললেও তিনি আমাদের কথা শুনেননি। তাই ঠিকাদার মো: নজরুলকে নির্মাণ কাজটি বন্ধ রাখা জন্য বলা হয়েছে। এব্যাপারে আলেক্ষ্যং ইউপি চেয়ারম্যান বিশ্বনাথ তঞ্চঙ্গ্যাকে ও জানানো হয়েছে।
এ নির্মাণে কাজের নিয়োজিত শ্রমিক মো: শুক্কুর জানান, ঠিকাদার যেভাবে বলেছে সেভাবেই কাজ করছি। ঠিকাদারের কথার বাইরে আমরা কিছু কাজ করতে পারব না। তবে এ কাজটি তেমন টেকসই হবে না।
আলেক্ষ্যং ইউপি চেয়ারম্যান বিশ্বনাথ তঞ্চঙ্গ্যা বলেন, এ বিষয়ে শুনেছি মহিলা সমিতি ঘর বাউন্ডারী ওয়াল নির্মাণে কাজে কোন নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহার করা যাবে না। যদি ঠিকাদার করে থাকেন তাহলে পুনরায় এক নাম্বার ইট ও উন্নত মানের সামগ্রী দিয়ে এ কাজ করে দিতে হবে।
ঠিকাদার মো: নজরুলের সাথে ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, এব্যাপারে আমি জানিনা মাঝিকে ১ নান্বার ইট ব্যবহার করা জন্যে বলা হচ্ছে,আমি এখন বান্দরবানে আছি, আগামীকাল সাইটে যাব।
উপজেলা এলজিইডি অফিসের কর্মকর্তা ও উপসহকারি প্রকৌশলী মো: আজহার আলী জানান, এখন অফিসের কোন স্টাফ নেই তাই দেখভাল দায়িত্ব কোন কর্মকর্তা নেই। আপাতত আমি এ দায়িত্বে আছি। এখন আমি বান্দরবান জেলা অফিসের চলে আসছে।

আরও পড়ুন
1 মন্তব্য
  1. Shwe Hla বলেছেন

    ঠিকানাদারি,কে আইনে,ব্যবস্তা করুন।

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।