লামায় বিদ্যালয়ের শ্রেণী কক্ষে ছাত্রীকে উত্যক্ত : আহত ৩

লামায় বিদ্যালয়ের শ্রেণী কক্ষে ছাত্রী উত্যক্তকারী বখাটের হামলায় আহতরা
বান্দরবানের লামা উপজেলার হায়দারনাসী উচ্চ বিদ্যালয়ে স্কুল চলাকালীন সময়ে শ্রেণী কক্ষে প্রবেশ করে ৮ম শ্রেণীর এক ছাত্রীকে উত্যক্ত করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। শুধু তাই নয়, এ ঘটনার জের ধরে বখাটে কর্তৃক দুই দফার হামলায় গ্রাম পুলিশসহ ৩ জন আহত হয়েছেন। আহতরা হলেন- গ্রাম পুলিশ সাহাবুদ্দিন, স্থানীয় বাসিন্দা গিয়াস উদ্দিন ও মো. সাগর। বখাটে মোবারক ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়নের বাম হাতির ছড়ার বাসিন্দা আবু তাহেরের ছেলে। স্থানীয়রা আহতদেরকে উদ্ধার করে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।
স্থানীয় সূত্র জানায়, ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়নের হায়দারনাসী উচ্চ বিদ্যালয়ে বিদ্যালয় চলাকালীন সময়ে শ্রেণী কক্ষে প্রবেশ করে ৮ম শ্রেণীর এক ছাত্রীকে উত্যক্ত করে বখাটে মোবারক। এসময় মোবারককে শিক্ষকসহ আশপাশের লোকজন বাঁধা দেয়। এতে সে ক্ষিপ্ত হয়ে ১০-১৫ জনের ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী নিয়ে শনিবার বিকাল ৫টা ও রাত ৮টার দিকে গুলিস্থান বাজারে বাধা প্রদানকারীদের ওপর হামলায় চালায়। এতে গ্রাম পুলিশসহ ৩ জন আহত হয়। ঘটনার পর বখাটে মোবারক পালিয়ে যায়।
বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি কামাল উদ্দিন ও প্রধান শিক্ষক আব্দুল কাদের বলেন, বখাটে যুবক মোবারক ও তার সহযোগীদের বিচার হওয়া দরকার, যাতে করে ভবিষ্যতে এ ধরণের ঘটনা ঘটাতে না পারে।
এ বিষয়ে লামা উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, বিষয়টি ফাঁসিয়াখালী ইউপি চেয়ারম্যান জাকের হোসেন মজুমদার রবিবার মাসিক আইন শৃঙ্খলা মিটিংয়ে উপস্থাপন করেছেন। উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিষয়টি আমলে নিয়ে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য লামা থানাকে নির্দেশ দিয়েছেন।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।