সম্প্রীতির রাজনীতির নজির গড়লেন বীর বাহাদুর

বান্দরবানে বিএনপির প্রার্থী সাচিং প্রু জেরীকে প্রনাম করছেন আওয়ামী লীগ প্রার্থী পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি
দেশের রাজনীতিতে বিভাজনের কারনে যেখানে নিজ দলের নেতারা একে অপরের মুখ দেখাদেখি করেননা, সেখানে ক্ষোধ প্রতিদ্বন্ধী প্রার্থীর পায়ে ধরে প্রনাম করে এবং কোলাকুলি করে সহ অবস্থানের রাজনীতির চিরচারিত দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন বান্দরবান ৩০০ নং আসন থেকে টানা পাঁচবারের নির্বাচিত সংসদ সদস্য ,পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং।
স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, আজ বুধবার একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সংসদ সদস্য পদে মনোনয়নপত্র জমা দিতে যাবার আগে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী সাচিং প্রু জেরীর আশির্বাদ নিলেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী বীর বাহাদুর উশৈসিং। আজ বুধবার সকালে শহরের উজানীপাড়া বৌদ্ধ বিহারে আওয়ামীলীগ ও বিএনপির এই দুই প্রার্থী প্রনাম করতে যান। এসময় উভয় প্রার্থী একে অপরের মুখোমুখি হলে সাচিং প্রু জেরীকে প্রনাম ও কোলাকুলি করেন বীর বাহাদুর। তাঁরা পরষ্পরের শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা প্রকাশ করে একে অপর কুশল বিনিময় করেন। এই সময় পাশে ছিলেন সাচিং প্রু জেরীর স্ত্রী ও উভয়দলের নেতাকর্মীরা।
এই বিষয়ে বান্দরবান জেলা ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি জাহাঙ্গির আলম বলেন, বিষয়টি ভালো, তবে বিশেষ কোন আর মন্তব্য করতে চাইনা।
আরো জানা গেছে, বীর বাহাদুর ৯১সাল থেকে নৌকা প্রতিক নিয়ে টানা ৫বার নির্বাচনে অংশগ্রহন করে টানা পাঁচবার জয় লাভ করেন। অন্যদিকে সাচিং প্রু জেরী ১৯৯৬ থেকে ২০০৮ সাল পর্যন্ত তিনটি নির্বাচনে অংশ গ্রহন করে ধানের শীষ প্রতিক নিয়ে বীর বাহাদুরের সাথে প্রতিদ্বন্ধিতা করেন দুইবার, একবার তিনি দলের বিদ্রোহী প্রার্থী হিসাবে প্রতিদ্বন্ধীতা করেন। তিনটি নির্বাচনে বীর বাহাদুরের কাছে পরাজয় বরণ করেন বোমাং রাজপুত্র সাচিং প্রু জেরী।
এই ব্যাপারে বান্দরবান আওয়ামী লীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক লক্ষীপদ দাশ বলেন, এটায় সম্প্রতির বান্দরবান, যে যে দল করুক না কেন, সবার মধ্যে রাজনৈতিক শ্রদ্ধাবোধ এই ধরণের থাকা উচিত।
প্রসঙ্গত, বান্দরবান ৩০০ নং আসনে আওয়ামীলীগ থেকে বীর বাহাদুর উশৈসিং ও বিএনপি থেকে বোমাং রাজ পুত্র সাচিং প্রু জেরীকে দলীয় মনোনয়ন দেওয়া হয়। তারা দুজনেই বুধবার মনোনয়ন পত্র জমা দেন।

আরও পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।