খাগড়াছড়িতে কিশোরীকে ধর্ষনের অভিযোগে দুই ধর্ষক ৩ দিনের রিমান্ডে

খাগড়াছড়িতে কিশোরীকে ধর্ষনের অভিযোগে গ্রেফতার  দুই ধর্ষক
খাগড়াছড়িতে কিশোরীকে ধর্ষনের অভিযোগে গ্রেফতার দুই ধর্ষক
খাগড়াছড়িতে ধর্ষনের ভিডিও ধারন এবং ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেয়ার ভয় দেখিয়ে টানা ৭ মাস ধরে ১৭ বছর বয়সী এক কিশোরী ধর্ষনের শিকার হয়েছে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত ধর্ষক মাটিরাঙ্গার কাঁঠালপাড়া‘র হানিফ হাওলাদারের ছেলে রেজাউল করিম হাওলাদার (৩৭) এবং একই এলাকার জামাল উদ্দিনের ছেলে মো: সাবু মিয়া (৩৮) কে তিন দিনের পুলিশ রিমান্ডে নেয়া হয়েছে। ধর্ষণের শিকার ওই কিশোরীকে খাগড়াছড়ি জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ঘটনার বিবরণে জানা গেছে, খাগড়াছড়ির মাটিরাঙ্গার বাসিন্দা এক কিশোরীকে নানা প্রলোভন দেখিয়ে এবং পরে তাকে ধর্ষনের ভিডিও ধারন করে তা ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেয়ার ভয় দেখিয়ে প্রতিবেশী রেজাউল করিম হাওলাদার (৩৭) ও সাবু মিয়া (৩২) টানা সাত মাস ধরে দফায় দফায় ধর্ষন করে।

মাটিরাঙ্গা থানার অফিসার ইনচার্জ মো: সাহাদত হোসেন টিটো ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, মাটিরাঙ্গা পৌরসভা এক কিশোরীকে প্রতিবেশী রেজাউল করিম হাওলাদার (৩৭) ও সাবু মিয়া (৩২) নানা প্রলোভন দেখিয়ে বাগানে নিয়ে ধর্ষণ করে এবং ধর্ষনের চিত্র ভিডিও ধারণ করে। ধর্ষনের ভিডিওটি ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দিয়ে ওই কিশোরীকে গত সাত মাস ধরে দফায় দাফায় ধর্ষণ করা হয়। সবশেষে গত সোমবার বিকালে তাকে ডেকে নিয়ে দুই ধর্ষক অনৈতিক কাজের প্রস্তাব দিলে কিশোরী বিষয়টি তার পরিবারকে জানায়।

ওইদিন ধর্ষিতার পরিবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে মাটিরাঙ্গা থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা দায়ের করে। পুলিশ রাত অভিযান চালিয়ে দুই ধর্ষককে গ্রেফতার করে। এদিকে মঙ্গলবার দুপুরে অভিযুক্ত দুই ধর্ষককে খাগড়াছড়ি সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আবু সুফিয়ান মো: নোমানের আদালতে হাজির করে ৫ দিন করে রিমান্ডের আবেদন করে পুলিশ। আদালত তিন দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

খাগড়াছড়ি কোর্ট ইন্সপেক্টর মো: শফিকুল ইসলাম রিমান্ড মঞ্জুরের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, মোবাইলে ধারণ করা ধর্ষণের ভিডিও ফুটেজটি উদ্ধার করার জন্য ধর্ষকদের পুলিশ রিমান্ডে নেওয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।