খাগড়াছড়িতে মুক্তিপন দিয়ে মুক্ত ৩ ব্যবসায়ী

%e0%a6%85%e0%a6%aa%e0%a6%b9%e0%a6%b0%e0%a6%a3-%e0%a6%ae%e0%a7%81%e0%a6%95%e0%a7%8d%e0%a6%a4খাগড়াছড়িতে সশস্ত্র সন্ত্রাসীদের হাতে অপহরণের ১২ ঘন্টা পর আড়াই লক্ষ টাকা মুক্তিপন দিয়ে মুক্তি পেয়েছে তিন ব্যবসায়ী। জেলার রামগড়ে এ ঘটনা ঘটে। অপহৃতরা হলো, মো. আবুল খায়ের (৫২), তার ছোট ভাই মো. শাহজাহান (৪৫) ও মো: মোস্তফা (৩৫)। অপহৃতরা রামগড় পৌরসভার শশ্মানটিলা ও বল্টুরাম টিলা এলাকার বাসিন্দা এবং পেশায় বাঁশ ও কলা ব্যবসায়ী। মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে মুক্তিলাভের পর অসুস্থ হয়ে পড়া অপহৃত তিন ব্যবসায়ীকে রামগড় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, প্রতিদিনের ন্যায় মঙ্গলবার সকাল ৮টার দিকে মো: শাহজাহান ব্যবসার কাজে রামগড়ের পিলাকছড়া এলাকায় গেলে একদল সশস্ত্র সন্ত্রাসী অস্ত্রের মুখে তাকে ধরে নিয়ে যায়। এর কিছুক্ষণ পর একই কায়দায় আবুল খায়ের ও মোস্তফাকে তারা ধরে নিয়ে যায়। সেখান থেকে প্রায় ৫-৬ কিলোমিটার দূরের গহীন জঙ্গল ঘেরা একটি টিলার উপর নিয়ে হাত ও চোখ বেঁধে আটকে রাখে তাদের।

অপহরণকারীরা তাদের কাছে আট লক্ষ টাকা মুক্তিপণ দাবী করে। দরকষাকষির মাধ্যমে দুই লক্ষ ৫০ হাজার টাকায় মুক্তি দিতে রাজী হয় তারা। মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৭টার দিকে গহীন ঐ জঙ্গলে মুক্তিপণের আড়াই লক্ষ টাকা পৌঁছে দেয়ার পর তিনজনকে ছেড়ে দেয়া হয়।

রামগড় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অপহৃত ব্যাবসায়ী মো. আবুল খায়ের জানান, ৩০-৩৫ জন স্বশস্ত্র সন্ত্রাসীরা তাদেরকে গভীর জঙ্গলে আটকে রেখে সেখানে একটি বড় গর্ত খুঁড়ে। মুক্তিপণের টাকার জন্য তাদের তিনজনকে গুলি করে মারার ভয়ভীতি দেখায়। এ সময় হিরণ ত্রিপুরা নামে স্থানীয় এক সাবেক ইউপি মেম্বার সন্ত্রাসীদের হাত পা ধরে তিন ব্যবসায়ীর প্রাণ ভিক্ষা চায়।
ঐ ব্যবসায়ী আরো জানান, সন্ধ্যার পর লোক মারফত মুক্তিপণের আড়াই লক্ষ টাকা পোঁছানোর পর টাকাগুলো গুণে নিয়ে সন্ত্রাসীরা তাদের ছেড়ে দিয়ে চলে যায়।

রামগড় থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. মাইন উদ্দিন খান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, জেএসএস (সংস্কারপন্থী) এর সন্ত্রাসীরাই এ অপহরণ ও মুক্তিপণ আদায় করেছে বলে প্রাথমিক তথ্যে জানা গেছে।

আরও পড়ুন
Loading...