দীঘিনালায় সড়কের ইট তুলে কালভার্ট নির্মাণ

খাগড়াছড়ির দীঘিনালায় সরকারি রাস্তা থেকে ইট তুলে কালভার্ট নির্মাণের অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় ইউপি সদস্য নাজমুল হোসেন তারা’র বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় এলাকার সাধারণ মানুষের মধ্যে ব্যাপক ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। নাজমুল হোসেন তারা উপজেলার মেরুং ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য ও রশিক নগর গ্রামের গ্রামের স্থায়ী বাসিন্দা।

জানা যায়, চলতি অর্থবছরে এলজিএসপি-৩ এর আওতায় মেরুং ইউনিয়ন পরিষদের ৩ নং ওয়ার্ডের গুলছড়ি এলাকায় একটি বক্স কালভার্ট নির্মাণের দ্বায়িত্ব পায় স্থানীয় ইউপি সদস্য নাজমুল হোসেন তারা। অভিযোগ রয়েছে সড়কের ইট তুলে এ কালভার্টটি নির্মাণ করেছেন তিনি।

২৪ অক্টোবর (সোমবার) বিকেলে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, কালভার্ট এর দুই পাশে প্রায় ১৫ ফুট ইট তুলে ব্যবহার করা হয়েছে কালভার্টে। তাছাড়া নির্মাণকাজে ব্যবহৃত ইটগুলোতে সেঁওলা জমে আছে। এছাড়াও কালভার্টের দুইপাশে গাছের ডালপালা দিয়ে ঢেকে রাখা হয়েছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন স্থানীয় বাসিন্দা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, এ বক্স কালভার্টটি নির্মাণে সড়কের ইট তুলে ব্যবহার করা হয়েছে। তাছাড়া নির্মাণকাজে ব্যবহৃত ইটগুলোতে সেঁওলা জমা।

রশিক নগরের ফজলুর ইসলাম ফাহিম সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে লিখেন, এসব কর্মকান্ডের মাধ্যমে সরকারের ভাবমূর্তি নষ্ট করার পায়তারা চালাচ্ছে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে অভিযুক্ত ইউপি সদস্য নাজমুল হোসেন তারা বলেন, আমি আপনার সাথে দেখা করবো। পরবর্তীতে পুনরায় মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে কোন সদুত্তর পাওয়া যায়নি।

এ বিষয়ে মেরুং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাহমুদা বেগম লাকী বলেন, নির্মাণ কাজে কোন ইউপি সদস্য অনিয়ম বা দূর্নীতি করলে আমরা তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিবো।

দীঘিনালা উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আবদুস সামাদের সাথে মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করেও কোন মন্তব্য পাওয়া যায়নি।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।