দেশকে আবারো পিছিয়ে নিতে ষড়যন্ত্র চলছে : রাঙামাটিতে দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রীর শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশের উন্নয়ন ও অগ্রগতিতে দিশেহারা হয়ে দেশকে আবারো পিছিয়ে নিতে ষড়যন্ত্র চলছে। দেশকে পিছিয়ে নিতে যারা ষড়যন্ত্র করছে তারা কখনোই সফল হবে না বলে মন্তব্য করেছেন দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া। তিনি আজ সোমবার রাঙামাটিতে পাহাড় ধ্বস নিয়ে সচেতনতা বৃদ্ধি ও আগাম সতর্কতামূলক কার্যক্রম গ্রহন বিষয় এক কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন।
ত্রাণ মন্ত্রী বলেন, শেখ হাসিনার নেতৃত্বে প্রাকৃতিক ও মানব সৃষ্ট একের পর এক দুর্যোগ মোকাবেলা করে দেশ যেভাবে এগিয়ে চলেছে আগামীতেও দেশ আরো এগিয়ে যাবে।
রাঙামাটি ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠি সাংস্কৃতিক ইনষ্টিটিউট সম্মেলন কক্ষে রাঙামাটি জেলা প্রশাসক এ কে এম মামুনুর রশিদের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন, সংসদ সদস্য উষাতন তালুকদার, ত্রাণ মন্ত্রণায়ের সচিব শাহ কামাল, সাবেক পার্বত্য বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী দীপংকর তালুকদার, রাঙামাটি রিজিয়ন কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল গোলাম ফারুকহর অন্যান্য পদস্থ কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন। এর আগে পাহাড় ধ্বসের কারণে সম্ভাব্য হুমকি মোকাবেলায় করনীয় সর্ম্পকে সাধারণ মানুষকে জানাতে রাঙামাটি শহরে এক মোটর র‌্যালী বের করা হয়।
সভায় রাঙামাটির সাংসদ উষান তালুকদার বলেন, সম্মিলিতভাবে দুর্যোগ মোকাবেলা করতে হবে। গত বছরের পাহাড় ধসে উন্নত যন্ত্রপাতি না থাকায় অনেককে উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি। অনেককেই মাটির নীচে তলিয়ে গেছে। তিনি বলেন, প্রতি বছর বর্ষা মৌসুমে অতিবৃষ্টির ফলে কাপ্তাই হ্রদ তীরবর্তী এলাকায় বন্যা হয়।বৃষ্টি হলে রাঙামাটি- চট্টগ্রাম সড়কের রাস্তাগুলো অনেক ঝুকিপূর্ন হয়ে পড়ে।
উল্লেখ্য, রাঙামাটিতে ২০১৭ সালে ১৩জুনের ভয়াবহ পাহাড় ধ্বসের ঘটনায় ১২০ জনের প্রাণহানি ও মানুষের ঘরবাড়ির ক্ষতি হয়।
আসন্ন বর্ষা মৌসুমের আগেই লোকজন যাতে পাহাড়ের ঝুঁকিপূর্ণ স্থান থেকে নিরাপদ স্থানে সড়ে যায় সেই লক্ষ্যে সচেতনতা বাড়াতে এ কর্মশালার আয়োজন করে।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।