বান্দরবানের লামা ও থানচিতে করোনায় আক্রান্ত ৩ জন

বান্দরবান পার্বত্য জেলার নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার পর এবার লামা ও থানচি উপজেলায় করোনা থাবা বসিয়েছে। এই দুই উপজেলায় করোনায় আক্রান্ত হয়েছে তিনজন। তাদের মধ্যে লামা উপজেলার মেরাখোলায় ১ জন ও থানচি উপজেলার বড়মদকে ২ জন আক্রান্ত হয়েছে। পাহাড়বার্তা’কে বিষয়টি নিশ্চিত করেন বান্দরবান জেলার সিভিল সার্জন অং সুই প্রু।

বান্দরবান সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, আক্রান্তদের মধ্যে একজন পুরুষ পুলিশ সদস্য রয়েছে, তিনি থানচি সোনালী ব্যাংকের প্রহরী হিসাবে দায়িত্ব পালন করছেন। উপজেলাটির আরেকজন বড়মদকের বাসিন্দা। তিনি মারমা সম্প্রদায়ের পুরুষ ।

অন্যদিকে জেলার লামা উপজেলায় করোনা আক্রান্ত মেরাখোলার মুসলিম পাড়ার বাসিন্দা, তিনি একজন মহিলা। চট্টগ্রামে তাদের নমুনা সংগ্রহ করে পাঠালে সেখানে করোনা পরীক্ষায় পজেটিভ আসে।

এদিকে করোনায় আক্রান্ত তিন রোগীকে স্ব স্ব উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রের আইসোলেশনের রাখার জন্য যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান সিভিল সার্জন কার্যালয়। এই তিন রোগীর সংস্পর্শে যারা এসেছেন তাদেরও করোনা পরীক্ষার আওতায় আনা হবে বলে জানা গেছে। এনিয়ে জেলার ৭টি উপজেলার মধ্যে নাইক্ষ্যংছড়িতে ১ জন, লামায় ১ জন এবং থানচি উপজেলার ২ জনসহ জেলায় মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৪ জনে দাড়ালো।

প্রসঙ্গত, গত ১৬ এপ্রিল দুপুরে বান্দরবান পার্বত্য জেলায় প্রথমবারের মতো একজন করোনা রোগীর রিপোর্ট পজেটিভ আসে তিনি জেলার নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ঘুমধুম ইউনিয়নের তুমব্রু এলাকার বাসিন্দা, তিনি তাবলীগ জামাত ফেরত একজন পুরুষ। বর্তমানে তাকে নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আইসোলেশনে রাখা হয়েছে।

আরও পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।