বান্দরবানে এবার কড়া লকডাউন

করোনা সংক্রমন প্রতিরোধে বান্দরবান সদর উপজেলা, পৌরসভা এলাকা ও রুমা উপজেলাকে রেড জোন ঘোষনা করা হয়েছে। জেলায় আগে লকডাউন থাকলে তেমন কড়াকড়ি ছিলোনা। এবার করোনা সংক্রামন বেড়ে যাওয়ায় রেড জোনের খাতায় নাম উঠার কারনে এবার লকডাউন হবে সবচেয়ে বেশি কড়াকড়ি। কেউ আইন অমান্য করলে কোন ছাড় দেওয়া হবেনা বলে হুশিয়ারি উচ্চরন করে পুলিশ বিভাগ।

আজ বুধবার (১০জুন )দুপুর ১২ টা বাজার সাথে সাথে বান্দরবানের বিভিন্ন এলাকা হতে জনসাধারণকে সড়িয়ে ঘরে ফেরত যেতে নির্দেশনা প্রদান করে করে পুলিশের সদস্যরা। লকডাউন শুরুর পর থেকেই জেলা সদরের বিভিন্ন এলাকায় সেনাবাহিনীর টহল জোরদার করা হয়েছে, অন্যদিকে সকল যাত্রীবাহী যান ও দোকান বন্ধ হয়ে যায় শুধুমাত্র ওষুধের দোকান ছাড়া।

বান্দরবান পৌরসভার মেয়র মোহাম্মদ ইসলাম বেবী জানান, কোন ধরনের যানবাহন চলাচল করতে পারবেনা। তবে প্রশাসন, পুলিশ, সেনাবাহিনী, চিকিৎসক, মানবিক সহায়তা / ত্রান কার্যক্রম বাস্তবায়ন, জরুরি ঔষধ, চিকিৎসা উপকরণ, কৃষি উপকরণ ও পন্যবাহী যানবাহন চলাচল করতে পারবে।

মেয়র মোহাম্মদ ইসলাম বেবী আরো বলেন, বান্দরবান সদর উপজেলা, পৌরসভা এলাকা ও রুমা উপজেলাকে লকডাউন ঘোষনা করেছি এবং পরবর্তী নির্দিশ না দেওয়া পর্যন্ত এই লকডাউন বলবৎ থাকবে।

বান্দরবানের স্বাস্থ্য বিভাগ জানায়, জেলায় এ পর্র্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়েছে ৭১জন আর ১৬ জন চিকিৎসা শেষে সুস্থ হয়েছে। হোম কোয়ারেন্টিনে এ পর্যন্ত ১ হাজার ৬৭জন জন ছিল তার মধ্যে ৯শত ৮০ জন রোগীকে ছাড়পত্র দেয়া হয়েছে, প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে ১শত ১০জন ছিল এর মধ্যে ৯৯ জনকে ছাড় দেয়া হয়েছে।

এই ব্যাপারে সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শহীদুল ইসলাম বলেন, সবার উচিত ঘরে থাকা, এর ব্যতিক্রম দেখা গেলে লকডাউন অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে এবার আইনগত কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বান্দরবানের সিভিল সার্জন ডা:অং সুই প্রু মারমা জানান, এই পর্যন্ত বান্দরবানে নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে ১হাজার ৫শত ৮জনের,তার মধ্যে রিপোর্ট মিলেছে ৯শত ৬৬ জনের, এদের মধ্যে ৭১ জনের শরীরে করোনা পজেটিভ পাওয়া গেছে। তিনি আরো জানান, জেলায় করোনার উপসর্গ নিয়ে একজনের মৃত্যু হয়েছে এবং তার নমুনা পরীক্ষার ফলাফল পজেটিভ পাওয়া গেছে ।

আরও পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।