বান্দরবানে রোজাদাররা ইফতার হিসাবে বেছে নিচ্ছে ফলমূল

বান্দরবানে রোজাদাররা ইফতারের জন্য বাজার থেকে আনারস কিনছে
দেশের বিভিন্ন স্থানে রোজাদাররা ইফতারের জন্য বাহারি ইফতার সামগ্রী কিনলেও ফরমালিন মুক্ত ও রাসায়নিক সার ব্যবহার ছাড়া উৎপাদিত হবার কারনে বান্দরবান পার্বত্য জেলার রোজাদাররা ইফতার করতে দেশিয় ফলকে বেশি বেছে নিচ্ছেন।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, জমে ওঠেছে বান্দরবানের ইফতারি বাজার। দুপুর গড়িয়ে বিকেল হতেই শহরের বিভিন্ন রেস্টুরেন্ট থেকে শুরু করে ফুটপাতের ছোট চায়ের দোকান, টঙের দোকান এবং ভাসমান ভ্যানগাড়িতে বিক্রি হচ্ছে হরেক রকমের ইফতার সামগ্রী। শহরের বিভিন্ন দোকানে এখন ছোলা, পিয়াজু,বেগুনী,আলুর চপ,শাকবড়া,পুডিং,দই,ফিন্নি,পিঠাসহ নানা রকম ইফতার সামগ্রীর রকমারী বাহার শোভা পাচ্ছে, তবে ক্রেতা কম। রাসায়নিক সারের ব্যবহার ছাড়া উৎপাদিত হওয়া ও ফরমালিন না মেশানোর কারনে ইফতারের ম্যানুতে রোজাদাররা সবচেয়ে বেশি যোগ করছেন বান্দরবানে উৎপাদিত দেশীয় ফল।
সারাদিন অনাহারে থেকে ইফতারিতে নানান পদের খাবার খেতে রোজাদাররা ঘুরে বেড়ায় এ দোকান থেকে ও দোকানে। জেলা শহরের মসজিদ মার্কেট,ট্রাফিক মোড়,চৌধুরী মার্কেট,রাজার মাঠ,বালাঘাটা বাজারসহ বিভিন্ন স্থানে ছোট বড় দোকানের লোভনীয় ইফতার সামগ্রী কিনতে দেখা যায় রোজাদার মুসলমানদের।
বান্দরবান বাজারের ইফতারি বিক্রেতা মো:নাজিম জানান, এবারের ভালো ইফতারি বিক্রি হচ্ছে। প্রতিদিন আমরা ছোলা, পিয়াজু, বেগুনী, আলুর চপ,শাকবড়াসহ বিভিন্ন আইটেম তৈরি করি আর ভালো বিক্রি হচ্ছে ।
এদিকে পবিত্র রমজানের মাসের এই বরকতের মাসেই বান্দরবানের বিভিন্ন বাগানে উৎপাদিত হচ্ছে প্রচুর মৌসুমি ফল। আর আম, কাঠাল, লিচু, জাম, কলা,পেঁপে আর আনারসে ভরপূর হয়ে ওঠেছে জেলার বিভিন্ন বাজারগুলো। ইফতারিতে তেল ও ঝাঁলের খাবার অনেকটা এড়িয়ে রসালো ফল কিনে সারাদিনের ক্লান্তি আর পুষ্ঠি মেটাতেই অনেকেই কিনে নিচ্ছে মৌসুমি ফল।
বাজারে আম কিনতে আসা মো:সোলেমান জানান,আমি বান্দরবান বাজার থেকে দশ কেজি আম কিনলাম। প্রতি কেজি পঁিচশ টাকায় কিনলাম, দামে ও স্বস্তা আর মানে ও ভালো এই আম। এই পবিত্র রমজান মাসে আম দিয়ে ইফতারের মজাই আলাদা।
বান্দরবান বাজার কর্মকর্তা বিজয় কুমার দাশ জানান ,আমরা এই মাসে বান্দরবান বাজারে কন্ট্রোলরুম স্থাপন করেই বাজারের দরদাম নিয়ন্ত্রণ করছি। ব্যাবসায়ীরা যাতে ইফতার সামগ্রীতে কোন রং মেশাতে না পারে তার জন্য আমরা তদারকি করে যাচ্ছি।
পবিত্র রমজান মাসের শুরুতে রমজানের পবিত্রতা রক্ষা, দ্রব্যমূল্যর দাম নিয়ন্ত্রণে রাখা,ভেজাল খাদ্য পরিবেশন থেকে বিরত থাকা ও ফরমালিনযুক্ত দ্রব্য বিক্রয় না করে জনসাধারণের সেবা নিশ্চিত করার জন্য সভা সেমিনার এবং বাজারে কন্টোল রুম স্থাপন করেছে প্রশাসন।
বান্দরবান জেলা প্রশাসনের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো:মুফিদুল আলম জানান,বান্দরবান জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে বান্দরবানের খাদ্য দ্রব্যর ভেজাল এবং আমাদের দ্রব্যমুল্য নিয়ন্ত্রণয়ের লক্ষে আমরা বাজার মনিটরিং কার্যক্রম জোরদার করেছি।

আরও পড়ুন
1 মন্তব্য
  1. Sabbir Ahmed বলেছেন

    Abdullah Al Noman

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।