বান্দরবানে শীতের প্রকোপের সাথে বাড়ছে করোনা রোগী

গত কয়েকদিন ধরে বান্দরবানে তীব্র শীত অনুভূত হচ্ছে। আর শীতের সাথে পাল্লা দিয়ে যেন বাড়ছে করোনা রোগী। গত কয়েক মাসের মধ্যে সবচেয়ে বেশি আক্রান্তের ঘটনা ঘটেছে গত ২৭ সেপ্টেম্বর। এদিন করোনায় আক্রান্ত হয়েছে ৯ জন। নতুন আক্রান্তদের মধ্যে সবাই সদর উপজেলার বাসিন্দা।

বান্দরবানের স্বাস্থ্য বিভাগ জানায়, জেলায় এ পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়েছে ৮৫৩জন আর ৭৫২জন চিকিৎসা শেষে সুস্থ হয়েছে। হোম কোয়ারেন্টিনে এ পর্যন্ত ১হাজার ১শত ৬জন ছিল, তার মধ্যে ১ হাজার ১ শত ৬জন রোগীকে ছাড়পত্র দেয়া হয়েছে। প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে ১শত ১১জন ছিল, এর মধ্যে ১শত ১১জনকেই ছাড়পত্র দেয়া হয়েছে।

স্বাস্থ্য বিভাগ আরো জানায়, এই পর্যন্ত বান্দরবানে নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে ৫ হাজার ৫শত ৭৬জনের, তার মধ্যে রিপোর্ট এসেছে ৫হাজার ৩শত ৯জনের, এদের মধ্যে ৮৫৩জনের শরীরে করোনা পজেটিভ পাওয়া গেছে। জেলায় করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এই পর্যন্ত ৪ জনের মৃত্যু হয়েছে।

বান্দরবানের সিভিল সার্জন ডা: অং সুই প্রু মারমা বলেন, বান্দরবানে শীতকাল শুরুর পর থেকে করোনা রোগীর সংখ্যা আগের তুলনায় বৃদ্ধি পেয়েছে, করোনা ভাইরাস থেকে মুক্ত থাকতে স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলার কোন বিকল্প নেই। তিনি আরো বলেন, করোনার ২য় ডেউ মোকাবেলায় আমাদের আরো কঠোরভাবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা ও প্রয়োজন ছাড়া ঘরের বাহিরে না যাওয়াই শ্রেয়।

বান্দরবানের স্বাস্থ্য বিভাগের তথ্যমতে, জেলার ৭টি উপজেলায় এই পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়েছে ৮৫৩জন, আর এর মধ্যে সদর হাসপাতালে ৪১৯জন,সদর উপজেলায় ২০১জন, রোয়াংছড়ি উপজেলায় ৪০জন,রুমা উপজেলায় ২৬ জন, থানচি উপজেলায় ১৭জন, লামা উপজেলায় ৬৫জন, আলীকদম উপজেলায় ১৯জন, নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলায় ৬৬জন রোগী সনাক্ত হয়েছে। এদের মধ্যে ৭৫২জন চিকিৎসা শেষে সুস্থ হলে ও শীতকাল আসায় করোনা রোগীর সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে।

এদিকে করোনা মহামারীতে সচেতনতা বৃদ্ধির জন্য বান্দরবান জেলা প্রশাসন কর্তৃক ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান পরিচালিত হচ্ছে। নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ কায়েসুর রহমানের নেতৃত্বে বান্দরবানের নীলাচল, মেঘলা পর্যটন এলাকাসহ বিভিন্ন স্পটে মোবাইল কোর্ট অভিযান পরিচালিত হচ্ছে। সচেতনতা বাড়াতে লিফলেট ও মাস্ক বিতরণের পাশাপাশি জরিমানা করা হচ্ছে।

আরও পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।