রোয়াংছড়িতে জলকেলিতে শেষ হলো সাংগ্রাই

বান্দরবানের রোয়াংছড়িতে বর্ণিল আয়োজনের ধর্মীয় অনুষ্ঠান ও শুভ নববর্ষ উদযাপনে জলকেলির (পানি ছিটানো) মাধ্যমে বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বী মারমা সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় উৎসব সাংগ্রাই শেষ হয়েছে।

তিন দিনব্যাপী উদযাপিত সাংগ্রাই উৎসবের পুরনো বছরকে বিদায় আর নতুন বছরকে স্বাগত জানানো হয়। এর পাশাপাশি বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের ঐতিহ্যবাহী পিঠা তৈরী, ছোঁওয়াইং দান, বুদ্ধ প্রতিবিম্ব স্নান, ধর্ম দেশনা শ্রবণ অনুষ্ঠিত হয়।

আজ শনিবার (১৬ এপ্রিল ২০২২) বিকালে রোয়াংছড়ি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে জলকেলির অনুষ্ঠান উদ্বোধন করেন উপজেলা চেয়ারম্যান চহাইমং মারমা। এ সময় রোয়াংছড়ি ক্যাম্প অধিনায়ক মেজর মো: ফরহাদ ইসলাম, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. ফোরকান এলাহি অনুপম, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ক্রইচিংপ্রু মারমা, রোয়াংছড়ি সদর ইউপি চেয়ারম্যান মেহ্লাঅং মারমা, ডাক্তার মংহ্লাপ্রু, সহকারি কমিশনার (ভূমি) মো. ফখরুল ইসলাম, অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. আবদুল মান্নান, উৎসব উদযাপন কমিটি আহ্বায়ক মংখিং মারমা, সদস্য সচিব উমংনু মারমা উপস্থিত ছিলেন।

জলকেলিতে মারমা তরুণ-তরুণীরা একে-অপরকে পানি ছিটিয়ে খেলা শুরু করেন। পাশাপাশি চলে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। কয়েক হাজার মারমা নারী-পুরুষ এই উৎসবে যোগ দেন। পাহাড়ি জনগোষ্ঠীর বর্ষ বরণ উৎসব ‘বৈসাবি উৎসব প্রতিবছর চৈত্র সংক্রান্তি ও বাংলা নববর্ষবরণ উপলক্ষে মারমাদের ‘সাংগ্রাই এবং চাকমা ও তঞ্চঙ্গ্যারা ‘বিজু নামে এই উৎসব পালন করে। ইতি পূর্বে ১৩ এপ্রিল সকালে বর্ণাঢ্য মঙ্গল শোভাযাত্রার ও সাংগ্রাই উৎসবের সূচনা করা হয়। হিংসা-বিদ্বেষ না থেকে মৈত্রীময় জলধারায় পুরাতন বছরকে বিদায় এবং নতুন বছরকে বরণ করতে সাংগ্রাই করা হয়।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।