লামার গজালিয়া ইউপিতে সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে শিরিন নির্বাচিত

বান্দরবানের লামা উপজেলার গজালিয়া ইউনিয়নে সংরক্ষিত মহিলা আসন-২ পদে পূণনির্বাচন শান্তিপূর্ণভাবে সম্পন্ন হয়েছে। এক যোগে তিন কেন্দ্রে আজ বুধবার সকাল ৮টায় শুরু হয়ে বিকাল ৪টা পর্যন্ত চলে ভোট গ্রহণ। নির্বাচনের ঘোষিত ফলাফলে বই প্রতীকে ৭৭৫ ভোট পেয়ে শিরিন আক্তার বেসরকারীভাবে নির্বাচিত হন। তার নিকটবর্তী প্রতিদ্বন্ধি আচিং মার্মা সূর্যমুখী ফুল প্রতীকে পায় ৭২১ ভোট। এ নির্বাচনে তিন কেন্দ্রে মিলে মোট ভোটার সংখ্যা ছিল ১ হাজার ৯৮৫ জন। ভোট গণনা শেষে রিটার্নিং অফিসার ড. ইসহাক আলী ফলাফল ঘোষনা করেন।

এ সময় নির্বাচন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা ও প্রার্থীগণসহ শত শত উৎসাহী ভোটারগণ উপস্থিত ছিলেন। এ নির্বাচনে ২জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্ধিতা করেছেন। ভোটকে কেন্দ্র করে কেন্দ্রের আশপাশ এলাকায় বসেছিল মিনি হাট। প্রতি প্রার্থীর ছবি ও প্রতীক সম্বলিত ডিজিটাল ব্যানার ও পোষ্টারে ছেয়ে যায় কেন্দ্রের আশাপাশ। রিটার্নিং অফিসারের অধীনে কেন্দ্রে ১জন প্রিজাইডিং অফিসার, ৩জন সহকারি প্রিজাইডিং অফিসার ও বুথ প্রতি ২ জন করে ৬জন পুলিং অফিসার ভোট গ্রহন কাজে দায়িত্ব পালন করেন। ভোট কেন্দ্রের নিরাপত্তা ও আইনশৃংখলা রক্ষায় কেন্দ্রে পুলিশ পরিদর্শক, উপ-পরিদর্শক, উপ-সহকারী পরিদর্শক এবং পুলিশ সদস্যসহ পর্যাপ্ত সংখ্যক আনসার ভিডিপি সদস্য মোতায়েন ছিল। সেই সাথে সার্বিক আইনশৃংখলা রক্ষায় মাঠে নিয়োজিত ছিল ১জন ম্যাজিষ্ট্রেটের নেতৃত্বে পুলিশের স্ট্রাইকিং ফোর্স।

উল্লেখ্য, গত ১১ নভেম্বর দ্বিতীয় ধাপে লামা উপজেলার সাতটি ইউপিতে নির্বাচন সম্পন্ন হয়। এ নির্বাচনে উপজেলার গজালিয়া ইউনিয়নের ৪, ৫ ও ৬নং সংরক্ষিত ওয়ার্ডে দুই প্রার্থী সমান সমান ভোট পান। নির্বাচনে বই প্রতীক নিয়ে এ পদে শিরিন আক্তার পান ৫২৪ ভোট ও সূর্যমুখী প্রতীকে আচিং মার্মাও পান ৫২৪ ভোট। ফলাফলে সমান হওয়ায় এ ওয়ার্ড থেকে কাউকে বিজয়ী ঘোষনা করা হয়নি। পরে ২৩ নভেম্বর পুণ নির্বাচনের সিদ্ধান্ত নেয় নির্বাচন কমিশন। এদিকে নির্বাচনে অনিয়ম, জালিয়াতি ও ভোট কারচুপির অভিযোগ এনে গত মঙ্গলবার গজালিয়া ৪, ৫ ও ৬নং ওয়ার্ডের মহিলা মেম্বার পদপ্রার্থী শিরীন আক্তার উপজেলা সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে নির্বাচন সংশ্লিষ্ট ১২জনকে আসামী করলে মামলা করেন। আদালতের বিচারক মামলাটি আমলে নিয়ে সিআইডি বান্দরবানকে তদন্তের নির্দেশ দেন।

লামা উপজেলা নির্বাচন অফিসার আলমগীর হোসাইন জানান, শান্তিপূর্নভাবে ভোটগ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে। ভোটাররা উৎসবমুখর পরিবেশে ৩ ভোট কেন্দ্রে গিয়ে ভোট দিয়েছেন। নির্বাচনের সময় কোন অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।