কেপিএমে অস্থায়ী নিরাপত্তা প্রহরীদের ৪ মাসের বেতন ভাতা প্রদানের দাবি

রাঙামাটি জেলার কাপ্তাইয়ের চন্দ্রঘোনা কর্নফুলি পেপার মিলস (কেপিএম) লিমিটেডে কর্মরত অস্থায়ী নিরাপত্তা প্রহরীরা তাদের ৪ মাসের বেতনসহ নায্য মজুরি প্রদানের দাবি জানিয়েছেন। আজ বৃহস্পতিবার (২ এপ্রিল) সকাল ৯ টায় কেপিএম ১ নং গেইটে এক সংবাদ সম্মেলনে তারা এই দাবি করেন।

সংবাদ সম্মেলনে তারা জানান, কেপিএম এ সর্বমোট ৪৭ জন অস্থায়ী নিরাপত্তা প্রহরী কাজ করেন। মাসে তারা কেউ কেউ ৪০ থেকে ৪৫ হাজিরা ডিউটি করেন, কিন্ত কেপিএম কর্তৃপক্ষ তাদের মাত্র ২৬ হাজিরা বেতন প্রদান করেছেন এবং তারা বিগত ৪ মাস ধরে কোন বেতন পাচ্ছেন না। এরপর তাদের ২ জন অস্থায়ী নিরাপত্তা কর্মী মঈন উদ্দিন মিঠু এবং ওয়াল্লি উল্লা সুমনকে হিটার ব্যবহারের কারনে ডিউটি বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে, অথচ তারা প্রতিমাসে স্থায়ী শ্রমিকের মতো ৩৯২০ টাকা হারে ভাড়া প্রদান করে আসছেন।

সংবাদ সম্মেলনে তারা আরোও জানান, বর্তমানে নিরাপত্তা শাখায় যে সকল স্থায়ী নিরাপত্তা প্রহরী রয়েছে তাদের ন্যায় আমাদেরকে শিফট অনুসারে ডিউটি করানো হচ্ছে না বরং তাদের ৩ শিফট ডিউটি দিলে আমাদের ৪ শিফটে ডিউটি করা হচ্ছে। আমরা আমাদের টাকায় পোষাক ও বিভিন্ন ডিউটি করার সামগ্রী কিনে ডিউটি করছি।

সংবাদ সম্মেলনে তারা স্থায়ী নিরাপত্তা প্রহরীর ন্যায় ছুটি, চাকরি স্বায়ীকরণ, রমজানে ইফতারের টাকা প্রদান, স্থায়ী শ্রমিকের ন্যায় ছেলে মেয়েদের স্কুলের ফি কমানো সহ তাদের যাবতীয় বেতন পরিশোধ এবং নায্য মজুরির দাবি করেন।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য তুলে ধরেন অস্হায়ী নিরাপত্তা প্রহরী নুরুল আলম। এসময় অস্হায়ী নিরাপত্তা প্রহরী জয়নাল আবেদীন, শাহাবুদ্দীন বাবু, মঈনউদ্দিন মিন্টু, নিজাম উদ্দিন সহ সকল অস্থায়ী নিরাপত্তা প্রহরীরা উপস্থিত ছিলেন।

এই বিষয়ে কেপিএম এর ব্যবস্হাপনা পরিচালক ড: এম এম এ কাদের এই প্রতিবেদককে জানান, বিসিআইসির নির্দেশনা মোতাবেক সকল স্থায়ী ও অস্থায়ী শ্রমিককে বিগত আড়াই বছর ধরে ওভার টাইম দেওয়া বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে, এরপরও যেই সমস্ত অস্থায়ী নিরাপত্তা প্রহরী অতিরিক্ত ডিউটি করেছে, তাদের হিসেব করে মজুরি প্রদান করা হবে।

তিনি আরো জানান, সকল কর্মকর্তা কর্মচারী এবং শ্রমিক বিগত ৪ মাসের মধ্যে শুধু ডিসেম্বর মাসের বেতন পেয়েছেন, তাদেরকেও ডিসেম্বর মাসের বেতন দেওয়ার জন্য চেক ইস্যু করা হয়েছে। যে দুইজন শ্রমিকের ডিউটি বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে, তারা নিয়মের বাহিরে হিটার চালু করেছে এবং তাদের বিরুদ্ধে অন্যান্য অপরাধ ঘটিত ঘটনা আছে।

আরও পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।