জানিয়ে গুলি চালানোর আশ্বাস দিল মিয়ানমারের সীমান্ত পুলিশ

মিয়ানমার সীমান্তরক্ষী বর্ডার গার্ড পুলিশ (বিজিপি)
বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ির ঘুমধুম সীমান্তে মিয়ানমার সীমান্ত রক্ষী বাহিনীর (বিজিপি) সঙ্গে বাংলাদেশ বর্ডার গার্ড (বিজিবি) পতাকা বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে বলে জানিয়েছেন ৩৪ বিজিবির অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল মঞ্জুরুল হাসান খান।
তিনি বলেন, নোম্যান্সল্যান্ডের রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নেয়ার বিষয়ে আশ্বস্ত করেছেন বিজিপি। এছাড়াও পাতাকা বৈঠকে সীমান্তে গুলির বিষয়টি অস্বীকার করেছেন বিজিপি।
শুক্রবার বিকেল সাড়ে ৩টা থেকে শুরু হওয়া বৈঠকে সীমান্তে গুলির বিষয়ে মিয়ানমার সীমান্ত রক্ষী বাহিনী মঞ্জুরুল হাসান খানকে জানিয়েছে, অভ্যন্তরীণ নিরাপত্তার জন্য এই ফাঁকা গুলি চালিয়েছে। ভবিষ্যতে শূন্য রেখায় ফাঁকা গুলি চালালে তা বিজিবিকে জানিয়ে করবে বলে আশ্বস্ত করেন মিয়ানমারের সীমান্ত রক্ষী বাহিনী ।
পতাকা বৈঠকে বাংলাদেশের পক্ষ থেকে নেতৃত্ব দেন মঞ্জুরুল হাসান খান ও মিয়ানমারের পক্ষ থেকে নেতৃত্ব দেন দেশটির সীমান্ত পুলিশের লেফটেন্যান্ট সোয়োজাই লিউ।
গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ির তুমব্রু সীমান্তে শক্তি বৃদ্ধি করে মিয়ানমার। বেশ কিছু সামরিক পিকআপ, ট্রাক ও ভারী অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে বিপুল সংখ্যক বিজিপি সদস্য অবস্থান নেয় শূন্য রেখা থেকে দেড়শ গজ ভেতরে। ফলে রোহিঙ্গাদের মধ্যে তখন আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। এছাড়াও মিয়ানমার সেনাবাহিনী শূন্য রেখায় থাকা রোহিঙ্গাদের সরে যাওয়ার জন্য গতকাল মাইকিং করেছিল ।
গতকালের এ পরিস্থিতিতে মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূত লুইন উ’কে তলব করে তাকে একটি নোট ভারবাল বা আনুষ্ঠানিক পত্র দেয় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।