বান্দরবানের সেই শিক্ষকদের আর্থিক সহায়তা প্রদান করা হবে : ক্যশৈহ্লা

পাহাড়বার্তায় খোলা চিঠি

করোনা সংক্রামনে কর্মহীন মানুষের যেন কষ্টের শেষ নেই। ঘর বন্দী হয়ে মানবেতর জীবন-যাপন করছে বিভিন্ন পেশার অনেকে। করোনার কষ্টের দিনগুলোর বর্ণনা দিয়ে আকুতি জানিয়ে বান্দরবানের লামা উপজেলার এক শিক্ষক সহায়তার জন্য গত ৬ মে পাহাড়বার্তা’য় পত্র লিখেন বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ক্যশৈহ্লা’র উদ্দেশ্যে। আর এই পত্র চেয়ারম্যান এর দৃষ্টিগোচর হলে তিনি শিক্ষকদের জন্য আর্থিক সহায়তা প্রদানের সিদ্ধান্ত গ্রহন করেন বলে জানান পাহাড়বার্তা’কে।

সূত্রে জানা যায়, বান্দরবানের লামা উপজেলার সড়ই ইউনিয়নের ধুইল্যাপাড়া বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রধান শিক্ষক মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন পাহাড়বার্তা’য় পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ক্যশৈহ্লা এর কাছে বেসরকারী শিক্ষকদের অভাব-অনটনের কথা তুলে ধরে আর্থিক সহায়তা কামনা করেন। এর প্রেক্ষিতে পাহাড়বার্তা এই পত্র প্রকাশ করলে পার্বত্য জেলা পরিষদ শিক্ষকদের তালিকা যাচায় বাছায় করে আর্থিক সহায়তা প্রদানের সিদ্ধান্ত গ্রহন করে।

করোনা সংক্রামনের কারনে বান্দরবানের লামা উপজেলার ৪টি বেসরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে কর্মরত ১৬জন শিক্ষক পাবেন পার্বত্য জেলা পরিষদের এই আর্থিক সহায়তা। প্রত্যেক শিক্ষককে ৫ হাজার করে মোট ৮০হাজার টাকা আর্থিক সহায়তা প্রদান করা হবে। বিদ্যালয়গুলোর মধ্যে লামার নুনার ঝিড়ি বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় এর ৪জন শিক্ষক, মিরিঞ্জা বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৪জন শিক্ষক, ধুইল্যাপাড়া বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় এর ৪জন শিক্ষক,কমিউনিটি সেন্টার বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৪জন শিক্ষকসহ মোট ১৬জন শিক্ষিক পাবেন এই অর্থ সহায়তা।

বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ক্যশৈহ্লা পাহাড়বার্তাকে বলেন, ইতিমধ্যে লামা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এর কাছে চেক প্রদান করা হয়েছে। শিক্ষকরা অনুদানের চেক চেয়ারম্যান এর কাছ থেকে সংগ্রহ করতে পারবে।

আরও পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।