বান্দরবানে বিআরটিসি’র বাস চলবে উভয় দিক থেকে ৬টি করে

বান্দরবান-চট্টগ্রাম সড়কে অবশেষে ৬টি করে বিআরটিসি বাস চলার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। বিআরটিসি’র বাস চলাচলে নতুন সময়সূচী নির্ধারন না হলেও আজ বৃহস্পতিবার (৩১ অক্টোবর) বিকালে বান্দরবান পৌরসভা মিলনায়তনে পূরবী-পূর্বাণী মালিক সমিতি ও বিআরটিসি কর্তৃপক্ষের সাথে যৌথ বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

সূত্রে জানা গেছে, দীর্ঘদিন ধরে বান্দরবান-চট্টগ্রাম সড়কে পূরবী-পূর্বাণী যাত্রী সেবা দিয়ে আসলেও বর্তমানে যাত্রীদের দাবীর মুখে সরকারী বাস সার্ভিস বিআরটিসি গত সোমবার (২৮ অক্টোবর) থেকে বান্দরবানে এসি বাস সার্ভিস চালু করলেও গত মঙ্গলবার দুপুরে চলাচলের সূচী নিয়মাতান্ত্রিক হয়নি দাবি করে বান্দরবান-চট্টগ্রাম সড়কে বিআরটিসি এসি বাস সার্ভিস কর্মীদের উপর হামলার এবং বাস চলাচলের নতুন সময় সূচী নির্ধারণের জন্য উক্ত বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

এসময় শৈলশোভা মালিক সমিতির সভাপতি আবদুল কুদ্দুস,পৌর মেয়র ইসলাম বেবি, পরিবহণ মালিক সমিতির নেতা ঝুন্টু দাশ, অমল দাশ, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি তৌহিদুর রহমান রাশেদ, জেলা যুবলীগের আহবায়ক ক্যালু মং,সাংবাদিক এস বাসু দাশ, ঠিকাদার রাজু বড়ুয়া, টিআই মামুন, সিং থোয়াই মার্মা, প্রদীপ দাশসহ অনেকে উপস্থিত ছিলেন।

এসময় জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি তৌহিদুর রহমান রাশেদ বলেন, বান্দরবানে যাত্রী সেবার মান উন্নয়নে পূরবী-পূর্বাণীকে আরো সচেতন হতে হবে, এটা সময়ের দাবী। এটা করতে পারলে জেলায় পর্যটকের আগমন বাড়বে এবং আমাদের পরিবহণ খাত আরো এগিয়ে যাবে।

এসময় পরিবহণ মালিক সমিতির নেতা ঝুন্টু দাশ বলেন, আমরা মালিকরা বসে কিভাবে যাত্রী সেবার পরিধি বাড়ানো যায় এবং বান্দরবান-চট্টগ্রাম সড়কে বাস চলাচলের সূচি নিয়ে আগামী সোমবারের মধ্যে আলোচনা করে জানিয়ে দিবো।

শৈলশোভা মালিক সমিতির সভাপতি আবদুল কুদ্দুস বলেন,কোন সময় সূচীতে বিআরটিসি বাস যাতায়ত করবে সেই ব্যাপারে দ্রুত সিদ্ধান্ত জানানোর পাশাপাশি, যাতে যাত্রী সেবা নিশ্চিত করা যায় সেই বিষয়টিকে মাথায় রেখে কাজ করবে মালিক সমিতি।

বান্দরবান বিআরটিসির প্রতিনিধি সাদেক হোসেন চৌধুরী বলেন, বিআরটিসি সরকারী গাড়ি, সারাদেশে বিআরটিসি চলছে, বান্দরবানেও চলবে। তাই কোন পরিবহণ কোম্পানি যাতে ক্ষতিগ্রস্ত না হয় সেই লক্ষ্য রেখে বান্দরবান-চট্টগ্রাম সড়কে বিআরটিসি চলাচল করবে।

বান্দরবানের পৌর মেয়র ইসলাম বেবী বলেন, বান্দরবান-চট্টগ্রাম সড়কে এসি বাসের প্রয়োজন আছে এবং যাত্রী সেবার মান বাড়ানোর জন্য যাত্রীদের জোর যে দাবী রয়েছে তা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দেখলে বুঝা যায়। তাই আমরা দ্রুত সবাই বসে এই ব্যাপারে যথাযথ সিদ্ধান্ত গ্রহন করবো।

আরও পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।