ভ্রাম্যমাণ আদালতে সাজা দিতে পারবেন না ইউএনও-এসিল্যান্ড

রাজশাহীতে পুলিশের হাতে গ্রেফতারকৃত আসামিদের আদালতে হাজির না করে ভ্রাম্যমাণ আদালতে দণ্ড প্রদান থেকে বিরত থাকার নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

সোমবার (২৬ আগস্ট) রাজশাহী চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট স্বাক্ষরিত আদালত থেকে পাঠানো এক চিঠির মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট থানাগুলোকে এই বিষয়ে সতর্ক করা হয়েছে।

ওই চিঠিতে বলা হয়- জেলা প্রশাসক দফতরের ম্যাজিস্ট্রেট, উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) ও এসিল্যান্ডের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের বিচারক করে ভ্রাম্যমাণ আদালত বসানো যাবে না। এটি আইন বহির্ভূত। বিষয়টি সুপ্রিম কোর্টকেও অবহিত করা হবে বলে চিঠিতে উল্লেখ করেছে রাজশাহী চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট কেএম শহীদ।

চিঠিতে আরও বলা হয়- রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশ এবং জেলা পুলিশের অধীনস্থ থানাগুলোর অফিসার ইনচার্জ (ওসি) পুলিশের হাতে গ্রেফতার আসামিদের আদালতে সোপর্দ না করে ভ্রাম্যমাণ আদালতে হাজির করছেন। সম্প্রতি এমন ঘটনা আশঙ্কাজনক হারে বেড়েছে। ভ্রাম্যমাণ আদালতে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটগণ ‘মোবাইল কোর্ট আইন, ২০০৯’র বিধি লঙ্ঘন করে আসামিদের আইন বহির্ভূতভাবে বিভিন্ন মেয়াদে সাজা প্রদান করছেন। যা দেশের সংবিধান এবং প্রচলিত অন্যান্য আইনের সুস্পষ্ট লঙ্ঘন।

মোবাইল কোর্ট আইন, ২০০৯ এর ৬ (১) ধারায় বলা আছে, ‘এই আইনের অধীনে ক্ষমতাপ্রাপ্ত নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আইনশৃঙ্খলা রক্ষা ও অপরাধ প্রতিরোধ কার্যক্রম পরিচালনা করার সময় তার সম্মুখে কোনো অপরাধ সংঘটিত হলে তাৎক্ষণিকভাবে মামলাটি আমলে নিয়ে অভিযুক্ত ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান দোষী সাব্যস্ত হলে দণ্ড দিতে পারবেন। তবে মামলাটি তফসিলে বর্ণিত আইনের অধীনে জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট বা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট দ্বারা বিচারযোগ্য হতে হবে।’

আদালতের সতর্ক বার্তায় আরও বলা হয়, ‘আদালতের নির্দেশ অমান্য করে পরবর্তীতে ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে নিয়ম বহির্ভূতভাবে কোনো ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানকে দণ্ড প্রদান করা হলে, জড়িতদের বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

আরও পড়ুন
Loading...