যৌন হয়রানির অভিযোগ ওঠা পাসপোর্ট কর্মকর্তার ঠিকানা হলো খাগড়াছড়িতে

যৌন হয়রানির অভিযোগ ওঠা কুড়িগ্রাম জেলা আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসের উপসহকারী পরিচালক আব্দুল মোত্তালেব সরকারকে খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলায় বদলি করা হয়েছে। গত ২২ ডিসেম্বর (বুধবার) তার বদলির আদেশ জারি করে ইমিগ্রেশন ও পাসপোর্ট অধিদফতর। বদলির একদিন আগে তার বিরুদ্ধে পাসপোর্ট করতে আসা এক নারীকে যৌন হয়রানির অভিযোগ উঠেছিল।

তার স্থলে সদ্য যোগ দেওয়া কুড়িগ্রাম জেলা আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসের উপসহকারী পরিচালক কবির হোসেন জানান, গত ২২ ডিসেম্বর আব্দুল মোত্তালেব সরকারকে কুড়িগ্রাম থেকে খাগড়াছড়িতে বদলি করা হয়েছে। ২৩ ডিসেম্বর তিনি (কবির হোসেন) এক আদেশে যশোর থেকে বদলি হয়ে কুড়িগ্রামে যোগ দেন।

এর আগে, ২১ ডিসেম্বর (মঙ্গলবার) আব্দুল মোত্তালেব সরকারের বিরুদ্ধে অফিসের ভেতরেই এক পাসপোর্ট করতে আসা এক নারীকে যৌন হয়রানির অভিযোগ ওঠে। ঘটনার পরপর উপস্থিত লোকজন জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯-এ কল করে সহায়তা চাইলে ওই নারীকে উদ্ধার করে থানায় নেয় পুলিশ। যদিও ওই নারী পরে থানায় কোনও লিখিত অভিযোগ করেননি। বিষয়টি নিয়ে সমালোচনার সৃষ্টি হলে অভিযুক্ত কর্মকর্তা আব্দুল মোত্তালেবকে কুড়িগ্রাম থেকে খাগড়াছড়িতে বদলির আদেশ দেয় অধিদফতর।

ঘটনার পর উপস্থিত সাংবাদিকদের ভুক্তভোগী ওই নারী অভিযোগ করে জানান, ঘটনার প্রায় দেড় মাস আগে তিনি একটি পাসপোর্টের আবেদন করেন। তার স্বামী বিদেশে অবস্থান করায় তিনি নিজেই করেন আবেদনটি। কিন্তু আবেদনে সমস্যা আছে জানিয়ে আব্দুল মোত্তালেব ওই নারীকে কল করে অফিসে আসতে বলেন। পরে ২১ ডিসেম্বর ওই নারী পাসপোর্ট অফিসে এসে তার সঙ্গে দেখা করলে তৃতীয় তলার একটি কক্ষে যেতে বলেন। ওই কক্ষে তার আবেদনপত্র সংশোধন করতে হবে বলে জানান। পরে ওই নারী তৃতীয় তলার কক্ষে গেলে আব্দুল মোত্তালেব রুমে ঢুকে ভেতর থেকে দরজা লাগিয়ে দেন এবং তাকে জড়িয়ে ধরে হয়রানি করেন। এ সময় ওই নারীর চিৎকারে অফিসে উপস্থিত অন্যান্য লোকজন গিয়ে ধাক্কা দিয়ে দরজা খুলে ওই ভুক্তভোগীকে উদ্ধার করেন।

ঘটনাস্থলে উপস্থিত এক ব্যক্তি ৯৯৯-এ কল করে পুলিশের সহায়তা চান। পরে কুড়িগ্রাম সদর থানা পুলিশ ভুক্তভোগী নারীকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে এলেও অভিযুক্তকে আটক করেনি। তবে এ ঘটনা পূর্বপরিকল্পিত ও সাজানো বলে দাবি করেছেন বদলি হওয়া আব্দুল মোত্তালেব সরকার।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।