লামা ও আলীকদমের ১২ ইটভাটা বন্ধ করেছে জেলা প্রশাসন

গত ২৫ জানুয়ারি হাইকোট বিভাগের একটি রিটের আদেশ মূলে বান্দরবানের লামা উপজেলার ফাইতং ইউনিয়নের ১১টি ও আলিকদমে ১টি ইটভাটাকে ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে বন্ধ করে দিয়েছে জেলা প্রশাসন। এসময় এই ১২ ইট ভাটাকে মোট ১৬ লক্ষ টাকা জরিমানাও করা হয়।

গত বৃহস্পতিবার (১০ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১১ টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মো. কায়েসুর রহমান ও মো. মামুনুর রশিদের নেতৃত্বে এই অভিযান পরিচালনা করা হয়। অভিযানে সহযোগিতা করেন বান্দরবান পরিবেশ অধিদপ্তরের পরিদর্শক আশফাকুর রহমান, লামা থানার এসআই শাহীন পারভেজসহ সঙ্গীয় ফোর্স ও ফায়ার সার্ভিসের লোকজন।

এসময় লামার ফাইতং ইউনিয়নের ফরিদুল আলমের মালিকানাধী এফএসিকে ২ লক্ষ টাকা, মো: ইউনুসের মালিকানাধীন এসবিডাব্লিউকে ২ লক্ষ টাকা, মোকতার আহমেদের মালিকানাধীন এমএসবিকে ২ লক্ষ টাকাসহ আরো ৮টি ব্রিকফিল্ডকে ১ লক্ষ টাকা করে মোট ১৪ লক্ষ টাকা এবং আলিকদমের পূর্বপালং পাড়ার এফবিএম নামের একটি ইটভাটাকে ২ লক্ষ টাকা জরিমানা করেন। তাছাড়াও এই ইটভাটাগুলোর বিভিন্ন অংশে আংশিকভাবে ভেঙ্গে দেওয়ার পাশাপাশি কাঁচা ইট নষ্ট এবং ইটভাটাগুলো বন্ধ ঘোষনা করে নোটিশ টাঙ্গিয়ে দেওয়া হয়। এদিকে ইটভাটা বন্ধের কারণে উপজেলা দুটির বিভিন্ন উন্নয়ন কাজে ব্যঘাত সৃষ্টি হবে বলে জানান ঠিকাদাররা।

বান্দরবান জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মো. কায়েসুর রহমান জানায়, উল্লেখিত ইটভাটাগুলো হাইকোর্টের রিটের আদেশ ছাড়াও জেলা প্রশাসন ও পরিবেশগত ছাড়পত্র ছাড়াই অবৈধভাবে নিষিদ্ধ এলাকা ও পাহাড়ের পাদদেশে এমনকি আবাসিক এলাকায় ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান সংলগ্ন স্থানে পরিচালিত হচ্ছিল। তাছাড়াও তারা ইটাভাটার জ্বালানি হিসেবে ব্যবহার করছে পাহাড়ি কাঠ। তাই ইট প্রস্তুত ও ভাটা স্থাপন (নিয়ন্ত্রণ) আইনের ধারা লঙ্ঘনের কারণে এই অবৈধ ইটভাটাগুলোতে অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।