রাঙামাটিতে নিরাপত্তাবাহিনীর সাথে ইউপিডিএফ এর গোলাগুলিতে ১ জন নিহত

অস্ত্র উদ্ধার

রাঙামাটির মাইসভাঙ্গা এলাকায় নিরাপত্তাবাহিনীর একটি টহল দলের উপর শসস্ত্র সন্ত্রাসীরা এলোপাতাড়ি গুলি বর্ষন করে, নিরাপত্তাবাহিনীর সদস্যরা পাল্টা গুলি বর্ষন করলে একজন নিহত হয়। নিহতের নাম অর্পন চাকমা ওরফে বাবুধন চাকমা।

নিরাপত্তা বাহিনীর সূত্রে জানা গেছে, এসময় ঘটনাস্থল থেকে সন্ত্রাসী কাজে ব্যবহার করা ১টি অত্যাধুনিক বিদেশী পিস্তল, ১টি দেশী পিস্তল, বেশ কিছু পিস্তলের গুলি, এলজির কার্তুজ, গুলির খোসা,৩টি টর্চ লাইট,১টি ল্যান্ড ফোন, ব্যাগসহ বিভিন্ন সরঞ্জম উদ্ধার করা হয়েছে।

নিরাপত্তা বাহিনীর সূত্রে আরো জানা গেছে, আজ বুধবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) রাঙামাটি জেলার মাইসভাঙ্গা এলাকায় নিরাপত্তা বাহিনীর সাথে ইউপিডিএফ সন্ত্রাসীদের গুলি বিনিময়ের এই ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করে সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠান। এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত এই ঘটনায় কোন মামলা দায়ের করা হয়নি। এই ঘটনার পর উক্ত এলাকায় নিরাপত্তাবাহিনীর সদস্যরা তল্লাশি অভিযান অব্যাহত রেখেছে।

রাঙামাটিতে উদ্ধার করা অস্ত্র ও বিভিন্ন সরঞ্জাম

প্রসঙ্গত,২০২৮ সালের ৩ মে সংঘটিত নানিয়ারচর উপজেলা চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট শক্তিমান চাকমা হত্যা মামলার আসামী ছিলেন অর্পন চাকমা। সে ইউপিডিএফ এর শসস্ত্র শাখার একজন শীর্ষ সন্ত্রাসী। গত চার-পাঁচ মাস ধরে সে বন্দুকভাঙ্গার বানাসছড়ি এলাকায় কয়েক বন্ধুকে নিয়ে চাঁদা আদায় করছিল।

আরও পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।