বান্দরবানের করোনা সচেতনতায় কাজ করবে ধর্মীয় গুরুরা

পার্বত্য জেলা পরিষদের উদ্দ্যোগ

বান্দরবান পার্বত্য জেলার ৭টি উপজেলায় করোনা সচেতনেতা বাড়াতে এবার হিন্দু, মুসলিম, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান ধর্মীয় নেতাদের মাঠে নামানো হবে। আর এর লক্ষ্য আগামী শুক্রবার ২৭ মার্চ থেকে বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদের আয়োজনে বিভিন্ন ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের মসজিদে ইমাম, মন্দিরের ব্রাক্ষন, বিহারের ভান্তে ও চার্চের ফাদারদের নিয়ে মত বিনিময় করা হবে। এসময় প্রতিটি ধর্মের ৬ জন করে ধর্মীয় গুরু উপস্থিত থাকবেন।

বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদ সূত্রে জানা গেছে, প্রতিটি ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের প্রধানদের মাধ্যমে করোনা সচেতনতায় বার্তা ছড়িয়ে দিতে এই উদ্দ্যেগ গ্রহন করা হয়েছে। শুক্রবার সকাল ১০টায় মসজিদের ইমামদের দিয়ে বৈঠকের পর এর ধারাবাহিকতায় খ্রিস্টানদের ফাদার,মন্দিরের ব্রাক্ষন, বিহারের ভান্তেদের নিয়ে পৃথক পৃথক প্রশিক্ষনসহ মত বিনিময় করা হবে। এসময় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত থাকবেন পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ক্যশৈহ্লা।

এই ব্যাপারে বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ক্য শৈহ্লা পাহাড়বার্তাকে বলেন, করোনা নিয়ে ধর্মীয় গুজব এড়াতে, এর বিপরীতে সচেতনতা বাড়াতে এই উদ্দ্যেগ নেওয়া হচ্ছে। তিনি আরো বলেন, ধর্মীয়গুরুদের মাধ্যমে করোনা সচেতনতার বার্তা খুব সহজেই মানুষের কাছে পৌছানো যাবে।

প্রসঙ্গত,বান্দরবানে কোয়ারেন্টিনে আছে ৫৯ জন। তারমধ্যে হোম কোয়ারেন্টিনে ৪৯জন। প্রতিষ্টানিক কোয়ানেন্টিনে ১০জন। হোম কোয়ারেন্টিন থেকে অবমুক্ত ২৩ জন। হাসপাতাল কোয়ারেন্টিন থেকে অবমুক্ত ১ জন এবং সেনা-পুলিশের টহলের পাশাপাশি লকডাউন করা হয়েছে জেলার ৭টি উপজেলার লামা,আলীকদম ও নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলাকে।

আরও পড়ুন
Loading...